২০১৯-০১-১৮

শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

কাশ্মিরে অজ্ঞাত গেরিলাদের গ্রেনেড হামলা, যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে অজ্ঞাত গেরিলারা গ্রেনেড হামলা চালিয়েছে। আজ আলাদা দুটি জায়গায় গেরিলারা গ্রেনেড বিস্ফোরণ ঘটায়। এ নিয়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তৃতীয়বার হামলার ঘটনা ঘটল।

আজ (শুক্রবার) প্রথমে শ্রীনগরের লালচক এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীকে টার্গেট করে গেরিলারা গ্রেনেড নিক্ষেপ করলে কয়েকটি যানবাহন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

অন্যদিকে, আজ বিকেলে দক্ষিণ কাশ্মিরের সোপিয়ানে পুলিশ ক্যাম্পকে লক্ষ্য করে অজ্ঞাত গেরিলারা গ্রেনেড নিক্ষেপ করলে নিরাপত্তা বাহিনীর গাড়ি ও আশেপাশের কয়েকটি দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়। দুটি আক্রমণে অবশ্য কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

গতকাল বৃহস্পতিবারও অজ্ঞাত গেরিলারা গ্রেনেড নিক্ষেপ করলে পুলিশের এক কর্মকর্তা, দু’জন ট্রাফিক পুলিশসহ কমপক্ষে ছয়জন আহত হন। আহত ইকবাল সিং নামে ওই সহকারী উপ-পরিদর্শক জম্মু-কাশ্মির সশস্ত্র পুলিশে কর্মরত। তিনি দুই পায়ে আঘাত পেয়েছেন।

অন্যদিকে, হারিস মনজুর ও সানাউল্লাহ নামে দুই কনস্টেবল কাঁধে ও পায়ে আঘাত পেয়েছেন। আহতদের দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এভাবে পরপর তিনটি হামলার ঘটনায় প্রশাসনিকভাবে এখনও স্পষ্ট হয়নি যে এসবের নেপথ্য কোন সংগঠনের সদস্যরা জড়িতে আছে। নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে সন্দেহভাজন হামলাকারীদের সন্ধানে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

গত বুধবারই গোয়েন্দা এজেন্সির পক্ষ থেকে আত্মঘাতী সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। গোটা কাশ্মির উপত্যকায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের উচ্চসতর্ক অবস্থায় থাকতে বলা হয়েছে।

এদিকে, গতকাল উত্তরাঞ্চলীয় আর্মি কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল রণবীর সিং সন্ত্রাসবাদ বিরোধী অভিযানে বিগত ২০১৮ সালে সেনাবাহিনী উল্লেখযোগ্য সাফল্য পেয়েছে এবং এটিকে সেনাবাহিনীর জন্য উল্লেখযোগ্য বছর বলে অভিহিত করে গত বছর আড়াইশ’র বেশি সন্ত্রাসী নিহত, কমপক্ষে ৫৪ জনকে গ্রেফতার ও চারজন আত্মসমর্পণ করেছে বলে তিনি জানান।

আজ (শুক্রবার) হুররিয়াত কনফারেন্সের একাংশের চেয়ারম্যান মীরওয়াইজ ওমর ফারুক সেনাবাহিনীর মন্তব্যকে ‘দুর্ভাগ্যজনক ও অমানবিক’ বলে অভিহিত করেছেন।

সূত্র: পার্সটুডে