২০১৮-১১-২০

মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারে কওমি শিক্ষার্থীদের চাকরি প্রসঙ্গ

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহারের থাকছে কওমি মাদরাসা স্বীকৃতি প্রসঙ্গও। প্রকাশিত একটি প্রাথমিক খসড়া থেকে বিষয়টি জানা গেছে।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ঘোষিত ভিশন ২০৩০-এর আলোকেই তৈরি হচ্ছে এবারের ইশতেহার। যেখানে নতুন নতুন অনেক প্রতিশ্রুতি থাকছে জনগণের জন্য।

এছাড়াও প্রতিহিংসার রাজনীতি বাদ দিয়ে এবারের ইশতেহারে নতুন ধারার সৃষ্টি ও ক্ষমতায় গেলে জাতীয় সংসদকে সব কর্মকাণ্ডের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করার প্রতিশ্রুতি থাকবে ইশতেহারে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রণীত এ ইশতেহারে সরকার, সংসদ, রাজনীতি, অর্থনীতি, শিক্ষা, কৃষি, পররাষ্ট্রনীতিসহ সরকারের প্রতিটি সেক্টরকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেয়া হবে।

শিক্ষা বিষয়ে ইশহারে রয়েছে, শিক্ষা ক্ষেত্রে কোনো বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থাকবে না। পর্যায়ক্রমে সব সরকারি করা হবে। বেসরকারি সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকদের চাকরি পর্যায়ক্রমে জাতীয়করণ করা হবে।

কওমি মাদরাসা শিক্ষা বিষয়ে বলা হয়, শিক্ষক নিয়োগে শতভাগ মেধা অনুসরণ করা হবে। কওমি শিক্ষার্থীদের শুধু দাওরায়ে হাদিসের স্বীকৃতিতে সরকারি চাকরি মিলবে না। কেননা বেশিরভাগ চাকরিতে স্নাতক ডিগ্রি চাওয়া হয়। তাই স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে সরকারি-বেসরকারি সব ধরনের চাকরিতে যোগ্য করতে দাওরায়ে হাদিসের নিচের তিন স্তরকে সমমানের স্বীকৃতি দেয়া হবে।

এছাড়ও ‘স্মার্ট শহর’ নামে একটি অঙ্গীকার থাকবে ইশতেহারে। স্মার্ট শহরের মূল লক্ষ্য হচ্ছে জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন করা, যাতে করে মানুষ আরও শান্তিপূর্ণ জীবনযাপন করতে পারেন।

আগামীতে ক্ষমতায় গেলে প্রশাসনে আমূল পরিবর্তনও আনার প্রত্যয় থাকবে ইশতেহারে। সুশাসন, সুনীতি ও সু-সরকারের (থ্রি-জি) সমন্বয় ও বৃহত্তর জনগণের সম্মিলনের মাধ্যমে ‘ইনক্লুসিভ সোসাইটি’ গড়ার অঙ্গীকার থাকবে এতে।

তরুণদের বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে এ ইশতেহার তৈরি করছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫; এর সঙ্গে মিল রেখে অবসরের বয়স বাড়ানো, কোটার যৌক্তিকীকরণ হবে।

খসড়ায় প্রস্তাবিত প্রতিশ্রুতিগুলোর মধ্যে রয়েছে- স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়ন, বেকারত্ব নিরসন, বিচার ব্যবস্থার সংস্কার, কৃষিতে ভর্তুকি, দ্রব্যমূল্য নির্ধারণ ও শ্রমিকদের মজুরি নির্ধারণ।

আগামী ৬ মাস পর্নো সাইট বন্ধের নির্দেশ হাইকোর্টের

আরআর