২০১৮-১১-১৮

মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

২০০৯ সাল থেকে বিএনপির মামলার তালিকা দিল ইসিকে

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: বিএনপি ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে গত ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এবং তফসিল ঘোষণার পর থেকে এখন পর্যন্ত দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে করা মামলা ও গ্রেপ্তারের তথ্য নির্বাচন কমিশনকে দিয়েছে।

এ বিষয়ে দুটি চিঠি দেয়া হয়েছে কমিশনে। এতে গুম, খুনের শিকার হওয়া নেতাকর্মীদের সংখ্যাও উল্লেখ করা হয়েছে। গতকাল বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মামলা ও তথ্য সংগ্রহকারী কর্মকর্তা সালাউদ্দিন খান ইসিতে এসে এই চিঠি পৌঁছে দেন।

দুই চিঠিতে উল্লেখ থাকা মামলার অধিকাংশ ‘গায়েবি ও মিথ্যা’ বলে উল্লে করেছে বিএনপি। আইন-শৃঙ্খলা যাতে ‘গায়েবি ও মিথ্যা’ মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার না করে- সে জন্য পুলিশকে নির্দেশনা দিতে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) হস্তক্ষেপও চেয়েছে বিএনপি।

চিঠিতে আরও বলা হয়, এসব গায়েবি মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার বা হয়রানি না করতে বিএনপিসহ ২০ দল ও জাতীয় ঐক্যজোট প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে। সে সময় প্রধানমন্ত্রী এসব মামলা ও গ্রেপ্তারের তথ্য তার দপ্তরে পাঠাতে বলেন।

এরপর ৭ নভেম্বর এক হাজার ৪৬ টি ও ১৩ নভেম্বর এক হাজার দুইটি মামলার তথ্য জানানো হয়। তবে তালিকা পাঠানোর পরও এখন পর্যন্ত মামলা প্রত্যাহার বা গ্রেপ্তার হওয়া নেতাকর্মীদের অব্যাহতি দেওয়ার কোনো তথ্য দেয়া হয়নি।

একটি চিঠি বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এবং অপরটি দলের সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত।

একটি চিঠিতে বলা হয়েছে, ২০০৯ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলার সংখ্য ৯৪ হাজার ৭৬৯টি। এতে আসামি করা হয়েছে ২৬ লাখ ৭৯ হাজার ৯৮৮ জনকে।

আর ২০০৯ সালের জানুয়ারি থেকে চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মামলা হয়েছে ৯০ হজার ৩৪০টি। এ সব মামলায় আসামি ২৫ লাখ ৭০ হাজার ৫৪৭ জন। জেলহাজতে থাকা আসামির সংখ্যা ৭৫ হাজার ৯২৫ জন।

আর চলতি বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে মামলার সংখ্যা চার হাজার ৪২৯টি। আসামি এক লাখ ৯ হাজার ৪৪১ জন। চিঠিতে দাবি করা হয়, গত ১০ বছরে হত্যা হয়েছে এক হাজার ৫১২ জন। এর মধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে নিহত হয়েছে ৭৮২ জন। গুমের সংখ্যা এক হাজার ২০৪ জন।

এর মধ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হেফাজত থেকে গ্রেপ্তার দেখানো হয় ৭৮১ জনকে। আর গুম ৪২৩ জন। গুরুতর জখম ও আহত হয়েছেন ১০ হাজার ১২৬ জন।

মির্জা ফখরুলের চিঠিতে বলা হয়, চলতি বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে দেশব্যাপী আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা গায়েবি মামলা রুজু ও গ্রেপ্তার অভিযান পরিচালনা করছে। এর মধ্যে ৭ হাজার ৭৭৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নির্বাচনে পেশাদারিত্ব বজায় রাখবে সেনাবাহিনী: সেনাপ্রধান