২০১৮-১১-১৭

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮

ইসলামী আন্দোলনের ৩০০ আসনের মনোনয়ন সম্পন্ন

OURISLAM24.COM
news-image

 অাওয়ার ইসলাম: সংসদের ৩০০ আসনেই ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী যাচাই-বাছাইয়ের দীর্ঘ প্রক্রিয়া শেষে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে চূড়ান্ত মনোনয়ন কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।

শনিবার (১৭ নভেম্বর’১৮) পল্টনস্থ দলীয় কার্যালয়ে দলের আমির মুুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই’র উপস্থিতিতে মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়।

মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে সকাল থেকেই সারাদেশ থেকে দলীয় কার্যালয়ে আসতে শুরু করেন তৃণমূল থেকে প্রস্তাবিত ও প্রাক-প্রাথমিক বাছাইয়ে উত্তীর্ণ প্রার্থীরা।

সকাল ৯টা থেকে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হলেও এর অনেক আগেই ৩০০ আসনে হাতপাখা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সরব উপস্থিতিতে দলীয় কার্যালয় কানায়-কানায় ভরে ওঠে।

বেলা ১১টার মধ্যেই কার্যালয়ের পার্শ্ববর্তী রাস্তা হাউজবিল্ডিং চত্ত্বর কর্মী-সমর্থকদের স্লোগানে মুুখরিত হয়ে ওঠে। দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আর-মাদানীর মনোনয়ন সংগ্রহের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়।

বিভাগওয়ারি প্রার্থীদের মনোনয়ন ফরম যাচাই-বাছাইয়ের জন্য গঠিত ডেস্ক দিনব্যাপী সকল প্রক্রিয়ার আঞ্জাম দেয়। সর্বশেষ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ এর নেতৃত্বে যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমাান ও অধ্যাপক মুাহবুবুর রহমান প্রার্থী মনোনয়ন চূড়ান্ত ও নিশ্চত করেন।

বেলা ২টা থেকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই চূড়ান্ত প্রার্থীদের হাতে মনোনয়ন প্রদান করেন।

মনোনয়ন প্রদান অনুষ্ঠানে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই নীতির প্রশ্নে অটল ছিল, আছে এবং থাকবে ইনশাআল্লাহ। নীতির পরিবর্তন না করে শুধু নেতার পরিবর্তনের মাধ্যমে দেশে কাক্সিক্ষত শান্তি আসবে না।

স্বাধীনতার ৪৭ বছর গত হলেও মানুষের মৌলিক অধিকারগুলো প্রতিষ্ঠিত হয়নি। বিগত সরকারগুলো দেশ ও মানুষের উন্নতি না করে নিজের ও দলের উন্নতি করেছে, জনগণের জন্য কিছুই করেনি।

মনোনয়নপত্র প্রদানের পূর্বে আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানীও আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী, নায়েবে আমীর মাওলানা আব্দুল হক আজাদ ও মাওলানা আব্দুল আউয়াল, মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ।

অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, আহমদ আব্দুল কাইয়ূম, কেএম আতিকুর রহমান, মাওলানা নেছার উদ্দিন প্রমুখ। যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন হাসপাতাল থেকে সকলের কাছে তার আরোগ্যের জন্য দোয়া কামনা করেন। এসময় এক আবেগঘন পরিবেশ তৈরি হয়।

‘আলেম সমাজকে সম্মান করুন, তাদের ওপর আস্থা রাখুন’