২০১৮-১১-০৮

শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮

জাতীয় নির্বাচনের তফসিল সন্ধ্যায়

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হবে আজ। সন্ধ্যা ৭টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিয়ে তফসিল ঘোষণা করবেন।

নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরা হবে। আগামী ২০ ও ২৩ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণের তারিখ নির্ধারিত হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি বলেই মনে করা হচ্ছে।

এতে সব দলকে নির্বাচনে অংশ নেয়ার আহ্বান জানাবেন সিইসি । একই সঙ্গে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে রাজনৈতিক দল, ভোটার, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, গণমাধ্যমসহ সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করবেন।

রিটার্নিং, সহকারী রিটার্নিং ও ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতা, গাফলতি ও শৈথিল্য প্রদর্শন করলে নির্বাচন কর্মকর্তা (বিশেষ বিধান) আইন ১৯৯১ অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারিও থাকবে বলেও জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার তফসিল ঘোষণার পর কাল শুক্রবার থেকে সারা দেশে মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু হবে। প্রথমবারের মতো অনলাইনে মনোনয়নপত্র দাখিলের সুযোগ রাখা হচ্ছে। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ ১৯৭২-এ (আরপিও) ঋণখেলাপি সংক্রান্ত বিধিতে ত্রুটি রেখেই এ তফসিল ঘোষণা করা হচ্ছে।

৩১ অক্টোবর থেকে নির্বাচনের ক্ষণ গণনা শুরু হয়েছে। ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত বর্তমান সংসদের মেয়াদ রয়েছে। ওই সময়ের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা আছে।

নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বুধবার সন্ধ্যায় বলেন, বৃহস্পতিবারই তফসিল ঘোষণা করা হবে। এ সংক্রান্ত সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ইসির অধীনে থাকবে। ইসির নির্দেশনা অনুযায়ী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে। জানা গেছে, জাতির উদ্দেশে সিইসি ১০-১২ মিনিটের একটি বক্তব্য দেবেন। এর খসড়াও চূড়ান্ত করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে গত কয়েক দিনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও জোটের মধ্যে দফায় দফায় সংলাপ অনুষ্ঠিত হলেও তাতে আশানুরূপ কোনো ফল দৃশ্যমান হয়নি বলে ঐক্যফ্রন্ট নেতারা জানান।

জানা যায়, রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সংলাপ চলায় ৪ ডিসেম্বর তফসিল ঘোষণার ইসির পরিকল্পনা থাকলেও পরে সরে আসে। ওই দিনই কমিশনের এক সভায় সিদ্ধান্ত হয় আজ বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) তফসিল ঘোষণা হবে।

এদিকে ইসি সচিবালয় জানিয়েছে, নির্বাচনের প্রস্তুতিমূলক কাজ শেষ করে আনা হয়েছে। এবারও বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে।