২০১৮-১০-১৬

বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮

সাংসদ নজিবুল ভান্ডারীর শোভাযাত্রা প্রতিহত করতে আ. লীগের অবস্থান

OURISLAM24.COM
news-image

এম ওমর ফারুক আজাদ: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক নবনির্মিত ফটিকছড়ির নাজিরহাট-মাইজভাণ্ডার সড়ক উদ্ভোধনকৃত নামফলক উন্মোচন করেছেন চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসনের সংসদ সদস্য, তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্ভোধনকৃত নাজিরহাট-মাইজভাণ্ডার সড়কের নামফল স্থাপন ও উন্মোচন উপলক্ষে আজ (১৬ মার্চ) সকাল ১১টায় নাজিরহাট ঝংকার মোড়ে এক পথসভা অনুষ্টিত হয়।

সাংসদ ভান্ডারীর প্রধান অতিথির অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান এম তৌহিদুল আলম বাবু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার রায়, সাবেক ছাত্রনেতা ও আওয়ামী লীগ নেতা হুসাইন মোহাম্মদ আবু তৈয়ব, এম সোলায়মান বি কম (চেয়ারম্যান), চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম, চেয়ারম্যন হারুন রশিদ ইমন, চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন চৌধুরী, চেয়ারম্যান সরওয়ার স্বপন, হাসান সরওয়ার আজম চৌধুরী প্রমুখ।

এদিকে নামফল উদ্ভোধন উপলক্ষে এম.পি নজিবুল বশর মাইজভান্ডারীর মোটর শোভাযাত্রা করার কথা থাকলে উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দীন মুহুরীর নেতৃত্বে তা প্রতিহত করতে দলীয় কার্যালয়ের (এশিয়া প্লাজা) সামনে আওয়ামীলীগ,যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অবস্থান নেন।

অবস্থানের খবর পেয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে খাগড়াছড়ি মহাসড়কের বিকল্পে সুয়াবিল-রামগড় সড়ক দিয়ে এম.পির শোভাযাত্রার বহর দাতমারা গিয়েছে বলে জানা গেছে।

অবস্থানের ব্যাপারে জানতে চাইলে নাজিম উদ্দীন মূহুরী বলেন, তিনি (নজিবুল বশর ভান্ডারী) নৌকার উপর ভর করে এম.পি হয়ে এখন আওয়ামীলীগকে এড়িয়ে চলছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের নামফলক উন্মোচন অনুষ্টানে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের না জানিয়ে তিনি তার মাস্তান বাহিনী সহকারে শোডাউন দিচ্ছে। আমরা তা বিভিন্ন জায়গায় প্রতিহত করেছি। আমাদের কর্মীদের ধাওয়ায় পিছু হঠেছেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের নামফল উন্মোচনের মতো অনুষ্ঠানকে প্রতিহত করার কারণ কি জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচী হিসেবে গত ৪ অক্টোবর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের কথা ফটিকছড়িবাসীর কাছে তোলে ধরতে বাংলাদেশ সরকারের গণফুর্ত মন্ত্রী জনাব ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন আসলে তাদের ইশারায় (এম.পি) তাদের মাস্তান বাহিনী আমাদের প্যান্ডেল ও সভামঞ্চ ভাঙচুর করে।

যেখানে জায়গায় আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ফটিকছড়িতে এসে উন্নয়নের কথা ফটিকছড়িবাসীকে বলতে না পারে, স্টেজ ভেঙ্গে দেয়। তিনি (এম.পি) কিভাবে নির্বিগ্নে শোডাউন করে যাবে?

এদিকে আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের ডাকে সাড়া দিয়ে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরাও কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করলে উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জামাল এর কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা যেহেতু দলের মূল শ্রোতের নেতৃত্বের সাথে তাই সাধারণ সম্পাদকের আহবানে জড়ো হয়েছি। আমরা চাই দলীয় সহাবস্থানের। কিন্তু এম.পি মহোদয় আমাদের পাশ কাটিয়ে চলতে চাইছেন। যা রাজনীতিতে অস্থিরতা সৃষ্টি করতে পারে।

এদিকে এম.পি’র শোভাযাত্রাকে নির্বিগ্ন করতে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সাজোয়া যান নিয়ে সতর্ক অবস্থান নিতে দেখা গেছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে।

এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম উত্তরজেলা এডিশনাল এস.পি আব্দুল্লাহ আল মাসুমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, একটি বড় দলে অন্তর্কোন্দল থাকা স্বাভাবিক। উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা এম.পির বহর প্রতিহত করতে জড়ো হওয়ার খবর পেয়ে আমরা সতর্ক অবস্থান নিয়েছি যাতে করে কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে।

উল্লেখ্য, গত ২১ মার্চ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত এক জনসভা থেকেই ফটিকছড়ি উপজেলার নাজিরহাট- মাইজভাণ্ডার সড়কসহ চট্টগ্রামের ৪১টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর ও উদ্বোধন করেন।

সড়ক ও জনপদ (সওজ) বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ ফটিকছড়ির নাজিরহাট-মাইজভাণ্ডার সড়কটি সম্প্রসারণের একটি প্রকল্প হাতে নেয় সওজ। প্রকল্পটি একনেক পাস হওয়ার পর প্রকল্পের অধীনে সড়ক সম্প্রসারণ ছাড়াও ১টি বক্স কালভার্ট, ৪টি বড় আকৃতির সেতু, ঝুঁকিপূর্ণস্থানে গার্ডওয়াল নির্মাণ এবং প্রয়োজনীয় ড্রেনেজ ব্যবস্থা নির্মাণের ঠিকাদার হিসেবে নিয়োগ পায় মো. মহসিনের মালিকানাধীন একটি প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি প্রায় দু বছর সময় ধরে উক্ত সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ করে।

সরকারি নিয়ন্ত্রণ ও হস্তক্ষেপমুক্ত কওমি স্বীকৃতি বিরল ঘটনা: মুফতি ওয়াক্কাস

-আরএম