২০১৮-১০-১৫

মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮

রাজার যদি ফুটবল ম্যাচ দেখার শখ হয়…

OURISLAM24.COM
news-image

আবদুল্লাহ তামিম: আপনি যদি ফুটবল খেলা পছন্দ করেন তাহলে শখের বসে হয়ত একটি ফুটবল কিনবেন বা কয়েকটি ফুটবল খেলার ম্যাচ দেখে মনের স্বাদ মেটাবার চেষ্টা করবেন।

কিন্তু একজন রাজা যখন ফুটবল খেলা পছন্দ করেন তার শখ মেটাতে তিনি কেবল একটি ফুটবল কিনেন না বা একটি ম্যাচ দেখেন না। তিনি পুরো একটি ফুটবল দলই কিনে থাকেন।

হ্যাঁ এমনটাই ঘটেছে সৌদি বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজের ক্ষেত্রে। সৌদি শাসকরা তাদের দেশে ফুটবলের প্রতি প্রজাদের উৎসাহিত করতে চান। তাই দেশে ফুটবল খেলায় উন্নতি করতে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ দামি ফুটবল দল কেনার।

যেই ভাবা সেই কাজ। সৌদি বাদশা সম্প্রতি ইংল্যান্ডের সবচেয়ে দামি ফুটবল টিম ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনে নেয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ডেইলি স্টারের এক প্রতিবেদনে এ বিষয়ে বলা হয়েছে, সৌদি আরবের শাসক বাদশাহ সালমান ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফুটবল ক্লাবটি কেনার প্রস্তাব দিয়েছেন যা বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের একজন ব্যবসায়ীর মালিকানাধীন রয়েছে।

ব্রিটিশ মিডিয়া বলেছে সৌদি আরবের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভিশন ২০৩০ সামনে রেখে তারা সৌদি অর্থনীতির মোড় ঘুরাতে চাচ্ছে।

শুধু তেল নির্ভর না থেকে তেলের বাইরে অন্য অনেক দিকে অর্থনৈতিক উৎস থেকে আয় বাড়াতে চায় দেশটি।

তবে এর বাইরেও আরও একটি কারণ আছে ফুটবল দল কেনার। বিশেষ করে কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মতো প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলির সাথে প্রতিযোগিতাও এই সিদ্ধান্তের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক বলে জানা গেছে।

কেননা কাতার এর আগে ফ্রান্সের বিখ্যাত ফুটবল ক্লাব ‘প্যারিস সেন্ট-জার্মেই’ (পিএসজি) কিনে নিয়েছে। যেটি এখন ফুটবল ক্লাবগুলোর মধ্যে অন্যতম দাপট দেখাচ্ছে।

২০২২ সালের বিশ্বকাপ কাতারকে দেয়া নিয়েও অাক্রোশ আছে সৌদির। ফুটবল বিশ্বে নিজেদের ‍উন্নত করতে অনেক বছর ধরে চেষ্টা করছে সৌদি আরব। সে লক্ষ্যকে সামনে রেখে গতবছর তারা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এর সঙ্গে নানা চুক্তিতে আবদ্ধ দহয়েছিলো সৌদি সরকার।

একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছিল, যার উদ্দেশ্য ছিল সৌদি আরবের ফুটবল গেমগুলি প্রচার ও উন্নয়ন করার দায়িত্ব নেয়া।

এখন বাদশাহ সালমান ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনে ফেলার কথাই চিন্তা করছেন। কারণ কাতারের সঙ্গে নিজেদের স্থান উঁচু রাখতে ফুটবল খেলায় নিজেদের অবস্থান আগে পাকাপোক্ত করা দেশটির কাছে গুরুত্বপূর্ণ।

সূত্র: ডেইলি পাকিস্তান

-আরআর

একজন বক্তার কেমন হওয়া উচিত?
খাশোগি হত্যাকাণ্ড: ট্রাম্পকে পাল্টা হুমকি সৌদি আরবের