২০১৮-১০-০৪

শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮

আলেমদের অপপ্রচার বন্ধ করুন; আপনাদের ইতিহাসও আমাদের জানা

OURISLAM24.COM
news-image

মুহাম্মদ ফোরকান ইবনে জাফর

আল্লামা শাহ আহমদ শফি। লক্ষ কোটি আলেমদের হৃদয়স্পন্দন একটি অভিধা। সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব, উলামা ও তুলাবাদের শিরোমনি, জাতির আধ্যাত্মিক রাহবার।

যার উপমা এই, শুধু এশিয়া উপমহাদেশে নয়, বরং সমগ্র বিশ্বে ছড়িয়ে রয়েছে। আমি বিশ্বাস করি, তিনি একজন আল্লাহর অতি নগন্য ও প্রিয় বান্দা। আমার চোখে দেখা এ সরল মানুষটি একজন খালেস আল্লাহর ওয়ালী।

কওমি সমালোচনার জবাব

সনদ আমার অধিকার। তাই বলে, সরকার আমার সেই প্রাপ্য অধিকার আমার হাতে তুলে দিয়েছে এবং আমাদের লালায়িত হাজার বছরের সেই স্বপ্ন পূরণ করেছে।

আমার প্রশ্ন নয়, সরকার কি বৈধ না অবৈধ। কারণ, তা আমাদের রাজনৈতিক বিশ্লেষক যারা আছে তারাই নির্ধারণ করবে।

কিন্তু আমার এখন দায়িত্ব হলো, যে বা যারাই আমার অধিকার আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছে তাদের শোকরিয়া আদায় করা।

একজন বিবেকবান মানুষ বলতেই সেটি স্বীকার করে নেবে অকপটে। তবে, সেই সব মানব ব্যতীত, যারা মানব রুপে দানব।

তবে, হ্যাঁ আমাদের অতিরঞ্জিত করাটাও ঠিক হবে না। তাদের গরজ কী, সেটা হয়তো আপাতত এড়িয়ে গেলাম। কারণ, আমাদের মুরব্বিরা আমাদের কল্যাণ চায়। তারা বুঝে করুক বা না বুঝেই করুক।

একটা সিদ্ধান্তে সমস্ত উলামায়ে কেরাম ঐক্যমত্য হয়েছে। বিপরীতে কি গড়তে চলছে তা নাই বা বল্লাম। আমি শুধু এটুকু বলতে চাই, আজ সোস্যাল মিডিয়া বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে হৈ চৈ শুরু হয়েছে, আমরা আর চোখ বন্ধ করে থাকতে পারছি না।

বামপন্থী কিছু মিডিয়া, কিছু তাবেদার ব্যক্তি, গোষ্ঠি আল্লামা আহমদ শফিসহ দেশের হক্কানি উলামায়ে কেরামের বিরুদ্ধে প্রোপাগান্ডায় লিপ্ত। তাদের দেখে আমরা অবাক হই না। কারণ, যেখানে তারা রাসূলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম, সাহাবাদের বিরুদ্ধে বা কটুক্তি করতে দ্বিধাবোধ করে না।

কওমি মাদরাসা ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার – বিস্তারিত জানুন

তাদের কাছে জমানার উলামায়ে কেরাম বা আহমদ শফিই বা কি? তারাই নাকি এক সময়ের উচ্চ শিক্ষিত। যারা আজ আহমদ শফি সাহেবকে নিয়ে কটুক্তি করতে একটু দ্বিধা করে না। তার গলদ খুজে বেড়ায় এদিক সেদিক।

নির্বোধ তারাই, যারা আজ তার নামে অবৈধ কলিমা লেপন করে। শাপলার কথা টেনে নিয়ে, কেউ কেউ আবার ঘটনাটি উল্টো দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা কম করেনি। আমরা সেই রক্তাক্ত শাপলার শহীদের কথা ভুলে যাইনি। অবশ্যই সেই শহীদের বিচার একদিন এ মাটিতেই হবে।

আমরা তো আর তোমরা না। নেতার জন্য জান দিলে তোমরাই দাও। ক্ষমতার গদি টিকিয়ে রাখতে তোমরাই এ পাশ ওপাশ বদল করো। সবার ইতিহাস আমাদের জানা।

সুতরাং আল্লামা আহমদ শফিসহ আলেমদের নিয়ে সব প্রোপাগান্ডা এবং মিথ্যাচার বন্ধ করুন। না হলে ভবিষ্যতে এর মাসুল অন্যভাবে দিতে হবে আপনাদের।

শিক্ষার্থী: আল জামিয়া আল ইসলামিয়া পটিয়া চট্টগ্রাম

হেফাজত, কওমি স্বীকৃতি ও সংবর্ধনা বিষয়ে দীর্ঘ কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী

-আরআর