২০১৮-০৯-২৫

রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮

বিরুলিয়ায় শায়খ আবুল হাসান আলী নদভী ইসলামিক রিসার্চ সেন্টারের নিজস্ব ক্যাম্পাস উদ্বোধন

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: রাজধানীর মিরপুর বেড়িবাঁধ বিরুলিয়া ব্রিজ সংলগ্ন কাকাবোয় উচ্চতর ইসলামী শিক্ষা ও গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠান ‘শায়খ আবুল হাসান আলী নদভী ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার’ এর নিজস্ব ক্যাম্পাস ও সবকের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।

২৩ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেলে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সেন্টারের চেয়ারম্যান ও শায়খ নদভীর খলীফা শায়খ মাওলানা মুহাম্মদ সালমান।

প্রাচ্যের উপহার

স্বাগত বক্তব্য পেশ করেন সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক মাওলানা শহীদুল ইসলাম ফারুকী।

উপস্থিত ছিলেন মুফতি আব্দুল বারী, মাওলানা আবু ইউসুফ মুহাম্মদ নাসের, ড. মাওলানা মিজানুর রহমান, মুফতি রুহুল আমীন, মাওলানা কামালুদ্দীন ফারুকী, মাওলানা আতীকুল্লাহ শহীদ, মাওলানা মিজানুর রহমান, মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে সেন্টারের চেয়ারম্যান শায়খ মাওলানা মুহাম্মদ সালমান বলেন, ‘একুশ শতকে ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর বিরুদ্ধে ধেয়ে আসা বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের মোকাবেলায় শায়খ আবুল হাসান আলী নদভী রহ. আমাদের রূপরেখা, কর্মপন্থা ও কর্মসূচি দিয়ে গেছেন।

‘আমরা তার অনুসরণের মাধ্যমে এসব চ্যালেঞ্জের সফল মোকাবেলা করতে পারি। শায়খ নদভীর সেসব কর্মসূচি ও কর্মপন্থার বাস্তবায়নের জন্যই এই সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।’

স্বাগত বক্তব্যে সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক মাওলানা শহীদুল ইসলাম ফারুকী বলেন, ‘এ সেন্টার বিংশ শতাব্দীর মুজাদ্দিদ ও মুফাক্কিরে ইসলাম শায়খ আবুল হাসান আলী নদভী রহ. এর নামে নামকরণ করা হয়েছে।

‘স্বীকৃতি যেনো আমাদের লিল্লাহিয়্যত বিনষ্ট না করে’

কওমি মাদরাসা ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার – বিস্তারিত জানুন 

সময়ের ক্রান্তিলগ্নে এই যুগশ্রেষ্ঠ মনীষী মুসলিম উম্মাহর জন্য পথ-নির্দেশনা প্রদানের সাথে সাথে যুগের চাহিদা অনুযায়ী দাওয়াহ, তা’লীম, তাযকিয়াহ, সাহিত্য ও চিন্তা-দর্শনের বিভিন্ন ময়দানে সংস্কারমূলক কাজের আঞ্জাম দিয়ে গেছেন।

তার সঙ্গে প্রাচ্য ও প্রতীচ্য পরিচিত থাকলেও দুর্ভাগ্যজনকভাবে তাঁর প্রতিবেশী দেশের অধিবাসী হয়েও বাংলাদেশের মানুষ অনেকটাই তাঁর সাথে অপরিচিত। তাই মহান এ মনীষীর সংস্কারমূলক মিশনের চিন্তা-চেতনাকে এতদাঞ্চলে বসবাসরত বাংলা ভাষাভাষী মানুষের কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে এমন একটি প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন, যেখানে একই সঙ্গে দাওয়াতী, ইসলাহী, ইলমী, ফিকরী ও গবেষণামূলক কর্মকা- পরিচালিত হবে। আর সে উদ্দেশ্যেই আমাদের এ মারকায।’

মাওলানা ফারুকী আরো বলেন, ‘আমাদের এ মারকাযে গবেষণা কাজের অংশ হিসেবে পর্যায়ক্রমে তাফসীর, হাদীস, ইফতা, ইসলামী অর্থনীতি, দাওয়াহ ও তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব এবং আরবী ভাষা ও সাহিত্যের উপর বিশেষ তাখাস্সুস কোর্সসহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর শর্টকোর্স পরিচালিত হবে।’

আপনার ব্যবসাকে সহজ করতে এলো বিসফটি – বিস্তারিত জানুন