২০১৮-০৯-১৩

বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮

মেশকাত জামাত খুলছে সাভার দারুল আমান মাদরাসা

OURISLAM24.COM
news-image

সুফিয়ান ফারাবী
সাভার প্রতিনিধি

দীর্ঘদিন কাফিয়া জামাত পর্যন্ত চলার পর এবার আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমীর নির্দেশে মেশকাত জামাত পর্যন্ত খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সাভার দারুল আমান মাদরাসার মোহতামিম মুফতি নাজমুল হাসান বিন নুরী।

আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী উমরা থেকে ফেরার পর মাওলানা নাজমুল হাসান বিন নুরীকে নির্দেশ দিয়ে বলেন, নাজমুল, মাদরাসায় দাওরা হাদিস পর্যন্ত খুলে ফেলো। আল্লাহ সফলতা দিবেন।

তখন মুফতি নাজমুল হাসান বিন নুরী বিষয়টি মাদরাসা পরিচালনা কমিটিকে অবহিত করেন। কিন্তু মাদরাসা পরিচালনা কমিটি দাওরা হাদীস পর্যন্ত খোলার অনুমতি দেন নি। কারণ দাওরা হাদীস পর্যন্ত খুলতে হলে প্রচুর টাকা ও মানসিক প্রস্তুতি প্রয়োজন।

তাই তারা মুফতি নাজমুল হাসান বিন নুরী ইসলামকে বলেন, আপাতত মেশকাত জামাত পর্যন্ত খুলুন। তারপর বিবেচনা করা যাবে।

উন্নত আবাসন ব্যবস্থা, পরিকল্পিত পাঠদান পদ্ধতি এবং ভালো রেজাল্টের জন্য ইতোমধ্যেই সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে সাভারের এ মাদরাসা। প্রতিষ্ঠানটির বয়স পাঁচবছর হলেও ছাত্রর সংখ্যা অনেক।

স্থানীয় ও জাতীয় কওমি বোর্ডে সফলতা দেখিয়েছে মাদরাসার ছাত্ররা। শতভাগ পাশের এই প্রতিষ্ঠানের গতবছর হিফজ বিভাগের ছাত্ররা সাভারের স্থানীয় বোর্ড ‘ইত্তিহাদুল মাদারিসিল কওমিয়্যাহ’তে স্ট্যান্ড করেছে এবং ব্যপক সাড়াও ফেলেছে।

এসে গেল যাদুকরী মাদরাসা ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার

বর্তমানে মাদরাসাটিতে ১৬০ জন ছাত্র পড়াশোনা করছে। ১৪ জন শিক্ষক সার্বক্ষণিক তাদের তদারকিতে নিয়োজিত। মাদরাসার শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা ও ব্যায়ামের জন্য রয়েছে পর্যাপ্ত মাঠ।যেখানে বিকাল বেলা শরীরচর্চা করতে পারে।

মাদরাসাকে মেশকাত জামাতে উন্নীত করার কারণ জানতে চাইলে মাদরাসার মুহতামিম মুফতি নাজমুল হাসান বিন নুরী আওয়ার ইসলামকে বলেন, আমরা ছাত্রদের জন্য দিনরাত পরিশ্রম করি, যাতে তাদের লেখাপড়া ভালো হয়। সর্বদাই বাবার স্নেহে তাদের শাসন করি। যার ফলে তারা প্রতিষ্ঠানকে ভালো রেজাল্ট উপহার দিতে পেরেছে।

ছাত্রদের খেলাধুলার জন্য আছে পর্যাপ্ত মাঠ

আমাদের মাদরাসার মুরুব্বি আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী প্রায়ই মাদরাসায় আসেন এবং সব বিষয় পর্যবেক্ষণ করেন এবং সন্তোষও প্রকাশ করেছেন।

কিছুদিন আগে হজরত আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন, মাদরাসাকে যেন দাওরা হাদীস পর্যন্ত উন্নীত করা হয়। তাই আমরা মুরুব্বির আদেশ পালনার্থে আপাতত মেশকাত পর্যন্ত খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

বায়তুল আমান জামে মসজিদ

তিনি বলেন, একদল যোগ্য কর্মঠ আলেম তৈরি করার জন্য আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। আর যেহেতু মুরুব্বির আদেশে করছি, তাই আশা করি আল্লাহর নুসরতও আসবে।

-আরআর

আপনার ভাবনাকে সহজ করতে এলো বিসফটি। – বিস্তারিত জানুন