শনিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৮

এরশাদের সঙ্গে নির্বাচনী জোট করছে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস

OURISLAM24.COM
আগস্ট ৯, ২০১৮
news-image

রোকন রাইয়ান
আওয়ার ইসলাম

সাবেক প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের দল জাতীয় পার্টির সঙ্গে নির্বাচনী জোট করতে যাচ্ছে শাইখুল হাদিস আল্লামা আজীজুল হক রহ. প্রতিষ্ঠিত অন্যতম ইসলামি রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস।

আগামী শনিবার সকাল ১১ টায় রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটে এক সম্মেলনের মাধ্যমে নির্বাচনী জোট গঠনের ঘোষণা দেবে দল দুটি। এতে উভয় দলের প্রধানসহ শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে আওয়ার ইসলামকে এ খবর নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন।

তিনি বলেন, ৬ দফা চুক্তির ভিত্তিতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এ জোট গঠন হচ্ছে।

শনিবার জোট গঠন উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ এবং বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমির প্রিন্সিপাল মাওলানা হাবিবুর রহমান।

এছাড়াও দলের শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ এ সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

জোট বিষয়ে নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সরকার গঠন করলে ৬ দফা বাস্তবায়ন করা হবে এমন চুক্তির ভিত্তিতে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্ত হচ্ছে জাতীয় পার্টির সঙ্গে। চুক্তিগুলোর মধ্যে রয়েছে-

১. কুরআন সুন্নাহবিরোধী কোনো আইন সংসদে পাশ করা হবে না।

২. সংবিধানে আল্লাহর ওপর আস্থা ও বিশ্বাস পুনস্থপান করা হবে। যা বর্তমান সরকার বাতিল করেছে।

৩. কওমি মাদরাসার সরকারি স্বীকৃতি জাতীয় সংসদে আলোচনার মাধ্যমে পাশ করা হবে।

৪. হজরত মুহাম্মদ সা. ইসলামের সর্বশেষ নবী এ বিষয়টি সংবিধানে সংযোজন করা হবে।

৫. নবী ও রাসূল সা. এবং সাহাবায়ে কেরামের কটূক্তির শাস্তি দণ্ডনীয় অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হবে।

৬. ইসলামের বিরুদ্ধে কটুক্তির শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হিসেবে কার্যকর করা হবে।

জানা যায়, বেশ কিছুদিন আলোচনা পর্যালোচনার মাধ্যমে উভয় দলের নেতারা উক্ত বিষয়গুলোতে সম্মত হয়েছেন। এর ভিত্তিতে ১১ আগস্ট এক সম্মেলনের মাধ্যমে জোটবদ্ধ হবে দল দুটি।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এরই মধ্যে জোট গঠনের নানারকম তৎপরতা দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন দলের মধ্যে। হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের নেতৃত্বে গত বছর ৫৮টি দল নিয়ে সম্মিলিত জাতীয় জোট নামের একটি জোটের আত্মপ্রকাশ হয়।

ইসলামি অন্যান্য দলগুলোর মধ্যে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ ও খেলাফত মজলিস রয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটে।

ইসলামী ঐক্যজোট এ জোটে থাকলেও ২০১৬ সালের ৭ জানুয়ারি বের হয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই ভাগ হয়ে যায়। মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামীর নেতৃত্বে একটা অংশ জোট ছাড়ে, আর অ্যাডভোকেট আবদুর রকিবের নেতৃত্বে আরেকটা ভাগ থেকে যায় ২০ দলীয় জোটের সঙ্গেই।

২০ দলীয় জোট ছেড়ে আসা ইসলামী ঐক্যজোট আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নতুন ইসলামী জোট গঠনের চেষ্টা করছে বলে জানা গেছে। তবে এখনো এ নিয়ে বিস্তারিত কিছু সম্মুখে আসেনি।

এছাড়া জোটের বাইরে থাকা বড় ইসলামী দল ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এককভাবে নির্বাচনের সিদ্ধান্তেই অটল এবং সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি। ইতোমধ্যেই দলটি ৩০০ আসনের প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে।

নির্বাচনমুখী অপর ইসলামি দল বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন আগামী নির্বাচনে জোটের বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে উপনীত হয়নি। তবে এখন পর্যন্ত এককভাবে নির্বাচন করার ব্যাপারে মত দলটির নেতাদের।

[যারা ব্যবসা ও ব্যবসার হিসাব নিয়ে জটিলতায় রয়েছেন তাদের জন্য এলো বিসফটি।  ব্যবসাকে সহজ ও হাতের মুঠোয় নিন বিসফটির সাহায্যে- রেজিস্ট্রেশন করুন বিসফটিতে।]

রোহিঙ্গা পরিণতির দিকে যাচ্ছে কি আসামের ৪০ লাখ মুসলিম?

-আরআর