২০১৮-০৬-২৫

বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮

বিজয় ভাষণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন এরদোগান

OURISLAM24.COM
news-image

রকিব মুহাম্মদ
আওয়ার ইসলাম

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী হবার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভোট নিশ্চিত হবার পর বিজয় ভাষণের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন রজব তাইয়্যিপ এরদোগান।

চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার পরপরই তিনি বিজয় ভাষণ দেবেন বলে এরদোগানের দল একেপার্টির মূখপাত্র মাহির উনালের বরাত দিয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিপুল ভোটে এগিয়ে থাকায় বর্তমান প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যিপ এরদোগানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতারা।

এর মধ্যে রয়েছেন কাতারের আমির শেখ হামিম বিন হামাদ আল থানি, আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ, ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস, হাঙ্গেরির প্রেসিডেন্ট ভিক্টর অরবান এবং বসনিয়ার প্রেসিডেন্ট বাকের, উজবেকিস্তানের প্রেসিডেন্ট শাভকাত মিরজিয়াভ।

উল্লেখ্য, তুরস্কে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ৮৬ শতাংশ ভোটের মধ্যে প্রায় ২ কোটি ৫২ লাখ ভোট পেয়ে নিশ্চিত বিজয়ের পথে বর্তমান প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যিপ এরদোগান।

এ পর্যন্ত গণনা হওয়া প্রায় ৯০ ভাগ ভোটের মধ্যে এরদোগান পেয়েছেন ৫৩ দশমিক  শতাংশ ভোট। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মুহারেম ইঞ্চ পেয়েছেন ৩০ দশমিক ভোট। অন্য চার প্রার্থীর সবার প্রাপ্ত ভোট ৮ শতাংশের নিচে।

এই প্রথমবারের মতো তুরস্কে প্রেসিডেন্ট এবং পার্লামেন্ট নির্বাচন একসাথে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ সময় রোববার রাত ৮টায় ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হওয়ার পর চলছে গণনা। প্রেসিডেন্ট এবং পার্লামেন্ট মিলিয়ে গড়ে ভোট পড়েছে ৮০ শতাংশ।

তুরস্কের রাস্ট্রীয় সম্প্রচার কেন্দ্র (টিআরটি)’র পরিসংখ্যান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট পরেছে ৮৬.৮২ শতাংশ আর পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৮৭ শতাংশ।

প্রসঙ্গত, তুরস্কের সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থীদের কেউ নূন্যতম পঞ্চাশ শতাংশ ভোট না পেলে, নির্বাচন গড়াবে দ্বিতীয় দফায়। সর্বোচ্চ ভোট পাওয়া দুই প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন দ্বিতীয় দফায়।

প্রথম দফা নির্বাচনের পনের দিন পর অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় দফা নির্বাচন। যদিও ইতোমধ্যেই পঞ্চাশ শতাংশের বেশি ভোট পেয়ে গেছেন দেশটির তুমুল জনপ্রিয় নেতা এরদোগান। তাই দ্বিতীয় দফায় নির্বাচন অনুষ্ঠানের আর কোন প্রয়োজনীয়তা নেই।

উল্লেখ্য, রোববার তুরস্কের ৮১ টি প্রদেশে একযোগে ভোট গ্রহণ করা হয়েছে। এরআগে গত ৭ জুলাই থেকে বিদেশে অবস্থানরত এবং প্রতিবন্দীদের জন্য বিশেষ ভোটের ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন : তুর্কি নির্বাচন : নির্বাচিত হলে যে ক্ষমতা পাবেন এরদোগান