২০১৮-০৬-২৪

বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮

আবারো মানবিক সহায়তা প্রদানে শীর্ষে তুরস্ক

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম : ২০১৭ সালে বিশ্বব্যাপী মানবিক সহায়তা প্রদানকারী দেশগুলোর মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করেছে তুরস্ক । গত বছর দেশটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ৮.০৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সমপরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছে। এমন তথ্য উঠেছে এসেছে লন্ডন-ভিত্তিক ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভস-এর বৈশ্বিক মানবিক সহায়তা কর্মসূচি প্রকাশিত এক রিপোর্টে।

এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ২০১৭ সালে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ৬.৬৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছে। ২.৯৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে তালিকায় তৃতীয় স্থানে আছে জার্মানি। আর চতুর্থ স্থানে যুক্তরাজ্য (২.৫২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) এবং পঞ্চম স্থানে রয়েছে (২.২৪) ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

গত ১৯ জুন প্রকাশিত রিপোর্টের বিষয়ে বৃহস্পতিবার এক লিখিত বিবৃতিতে তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, কোনো ধরনের বৈষম্য ছাড়াই দেয়া এই মানবিক সহায়তা তুরস্কের মানবিক কূটনীতির শক্তি বৈশ্বিকভাবে আবারও স্বীকৃত হলো।

রিপোর্টের বরাত দিয়ে মন্ত্রণালয় আরো জানায়, জাতীয় আয় এবং মানবিক সহায়তার ক্ষেত্রে ০.৮৫ অনুপাত ধরে রেখে তুরস্ক বিশ্বের ‘সবচেয়ে দানশীল জাতি’ হিসেবে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে। এর পরেই ০.১৭ পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে নরওয়ে ও লুক্সেমবার্গ।

বৈশ্বিক এই মানবিক সহায়তা কর্মসূচি ছাড়াও তুরস্ক নিজ দেশে ৩৬ লাখ শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছে যা একক দেশ হিসেবে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি।

এই অর্জনকে মানবিক কূটনীতিতে বড় ধরনের অর্জন হিসেবে দেখছে তুরস্ক।

এক লাখ রোহিঙ্গার জন্য আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণে সহায়তা দেবে তুরস্ক

নির্যাতনের কারণে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা এক লাখ রোহিঙ্গা নাগরিকের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণে সহায়তা দেবে তুরস্ক। এ ছাড়া তুরস্ক রোহিঙ্গাদের জন্য শিগগিরই ১৩টি আইটেমের সমন্বয়ে প্রস্তুতকৃত ১০ হাজার প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী দেবে।

সফররত তুরস্কের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও সহযোগিতা বিষয়ক সংস্থার সমন্বয়ক আহমেদ রফিক গতকাল দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার সাথে তার সচিবালয়ের অফিস কক্ষে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এ কথা জানিয়েছেন।

সাক্ষাৎকালে তারা রোহিঙ্গা পরিস্থিতিসহ দ্বিপক্ষীয় বিভিন্ন বিষয়ে আলাপ করেন। রোহিঙ্গাদের নির্যাতনের বিষয়টিকে অমানবিক হিসেবে উল্লেখ করে দ্রুত এর সমাধান আশা করেন তারা।

ত্রাণমন্ত্রী জানান, একান্ত মানবিক কারণে বাংলাদেশ মিয়ানমারের নাগরিক রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়েছে। রোহিঙ্গা নিয়ে সরকারের মনোভাব ও অবস্থান অবহিত করেন মন্ত্রী। তুরস্কের প্রতিনিধি জানান, রোহিঙ্গা সমস্যার সুষ্ঠু সমাধানে তুরস্ক বাংলাদেশের পাশে থাকবে।

এ সময় আহমেদ রফিক জানান, তুরস্ক বাংলাদেশে পালিয়ে আসা এক লাখ রোহিঙ্গা নাগরিকের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণ করে দেবে। আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণের স্থান নিয়ে আলোচনা করেন তারা। আহমেদ রফিক আরো জানান, তুরস্ক শিগগিরই ১৩টি আইটেমের সমন্বয়ে প্রস্তুতকৃত ১০ হাজার প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী দেবে। এগুলোর হস্তান্তর নিয়েও কথা বলেন তারা।

প্রতিনিধি আরো জানান, শিগগিই তুরস্কের উপপ্রধান মন্ত্রী রিসেপ আব্বাস বাংলাদেশ সফর করবেন। বাংলাদেশ তুরস্কের উপপ্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাবে বলে মন্ত্রী প্রতিনিধিকে জানান। সফরের কর্মসূচি নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে আলাপ হয়। নয়াদিগন্ত।

আরও পড়ুন : তুরস্কে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে হামলার ছক, গ্রেফতার ১৪