২০১৮-০৫-২৪

মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮

মাগুরা ও কুমিল্লায় গোলাগুলিতে ৪ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: মাগুরায় আযুব হোসেন ও মিজানুর রহমান কালু নামে দুই মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে সদর উপজেলার পারনান্দুয়ালী হাউসিং প্রজেক্ট থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ জানায়, গভীর রাতে হাউসিং প্রজেক্টে দু’দল মাদক ব্যবসায়ী মাদকের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে গোলাগুলি করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের টহল দল সেখানে যায়।

গিয়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দু’জনকে দেখতে পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসে। তবে কর্তব্য চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। পরে এলাকাবাসী তাদেরকে শনাক্ত করেন। নিহতদের বিরুদ্ধে থানায় ২০টির বেশি মাদকের মামলা রয়েছে।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বাবুল প্রকাশে লম্বা বাবুল (৩৫) এবং সদর দক্ষিণে রাজিব (২৬) নামের এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন।

বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলাধীন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন আমানগন্ডা সলাকান্দা নতুন রাস্তার মাথায় এবং রাত সোয়া ২টার দিকে সদর দক্ষিণ উপজেলার চৌয়ারা সংলগ্ন ঢাকা-চট্টগ্রাাম পুুরাতন ট্যাংক রোডের গোয়ালমথন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত বাবুল চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বৈদ্দেরখিল গ্রামের হাফেজ আহাম্মদের ছেলে এবং রাজিব সদর দক্ষিণ উপজেলার কোটবাড়ি সংলগ্ন চাঙ্গিনী গ্রামের মৃত শাহ আলমের ছেলে। দুজনই তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী বলে পুলিশ দাবি করেছে। উভয় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে অস্ত্র ও মাদক।

চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পৌর এলাকার রামরায় এলাকা থেকে তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী বাবুুলকে আটক করা হয়। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তার একটি মাদকের চালান উপজেলার আমানগন্ডা এলাকায় রয়েছে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল ফয়সাল রাত আড়াইটার দিকে মুঠোফোনে জানান, মাদক ব্যবসায়ী বাবুলকে নিয়ে আমানগন্ডার নতুন রাস্তার মাথার মন্তাজের বাগানে রাত ১টার দিকে অভিযানকালে বাবুলের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষায় পাল্টা ২৩ রাউন্ড গুলি চালায়।

উভয়পক্ষের গুলিবিনিময়ে মাদক ব্যবসায়ী বাবুল ছাড়াও থানার এসআই মোজাহের, কনস্টেবল মিজান ও ফরিদ আহত হন। আহত বাবুলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমেক হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি এবং ২০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। ওসি আরও জানান, নিহত বাবুরেলর বিরুদ্ধে মাদক আইনে ৫টি মামলা রয়েছে।

আরো পড়ুন- যেসব কারণে রোজা ভঙ্গ হলে শুধু কাজা ওয়াজিব হয়