২০১৮-০৫-০১

শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

শবে বরাত নিয়ে অপপ্রচার; পিস টিভির ৮ বক্তার বিরুদ্ধে মামলা

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: শবে বরাত নিয়ে অপপ্রচার ও ভিত্তিহীন কথা প্রচার করায় ৮ ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

সোমবার বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনাল, ঢাকায় বিশেষ জজ আদালতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন, ২০০৬-এর ৫৭ ধারায় মামলা করে।

অভিযুক্ত আট ব্যক্তি হলেন, নরসিংদীর জামেয়া কাসেমিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যাপক কাজী মুফতি ইব্রাহীম, নরসিংদীর জামেয়া কাসেমিয়া কামিল মাদরাসার মহাপরিচালক কামালুদ্দীন জাফরী, মাসিক আল ইতিছামের সহকারী সম্পাদক ইমামুদ্দিন বিন আবদুল বাছির, নারায়নগঞ্জ আল-জামি’আহ আস সালাফিয়্যাহ’র অধ্যাক্ষ আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফ, নরসিংদী জামেয়া কাসেমিয়া কামিল মাদরাসার ভাইস প্রিন্সিপ্যাল মাহমুদুল হাসান আল মাদানী, নারায়নগঞ্জ আল-জামি’আহ আস সালাফিয়্যাহ মাদরাসার উপাধাক্ষ্য ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ মুযাফফর বিন মুহসীন, বাংলাদেশ জমঈয়তে আহলে হাদীসের সেক্রেটারী জেনারেল শহীদুল্লাহ খান মাদানী।

এই আটজনের বিরুদ্ধে আদালত পবিত্র শবে বরাত নিয়ে মিথ্যা অবমাননাকর বক্তব্য ইউটিউবে প্রচারের অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযুক্তরা সবাই বাংলাদেশে নিষিদ্ধ পিস টিভির আলোচক।

সাংবাদিক মুফতীউল আ’যম আবুল খায়ের মুহম্মদ আযীযুল্লাহ বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন।

বাদী তার অভিযোগে বলেন, গত ২৪ এপ্রিল সকালে ইউটিউবে দেখতে পান উল্লেখিত ব্যক্তিরা পবিত্র শবে বরাতের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে বলের, ‘১৪ শাবান বা ১৫ শাবান কেউ শবে বারাতের নিয়তে সিয়াম পালন করবেন না এই সিয়াম পালন করলে এটিই জাহান্নামে যাবার জন্য যথেষ্ট’ এবং ‘শবে বরাত উপলক্ষে কোন কর্যক্রম করলে ওই ব্যক্তির তওবার দরজা ওই দিন থেকেই বন্ধ।

তারা আরও বলেন, গোটা বছর ধরে যত ইবাদত করবে যত বার তওবা করবে কোন তওবা তার কবুল হবে না। কেয়ামত পর্যন্ত তার তওবার দরজা খোলা হবে না। আল্লাহ কাছে ক্ষমা চাইবে কবুল হবে না। কারণ হলো সে শবে বরাত পালন করেছে’ নাউযুবিল্লাহ!

শবে বরাত সম্পর্কে মনগড়া, দলিলবিহীন এমন বক্তব্য ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগায় বাদী মামলাটি দায়ের করেছেন।

পবিত্র শবেবরাত : করণীয় বর্জনীয়

-আরআর