শনিবার, ২১ জুলাই ২০১৮

প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের সঙ্গে আলেমদের বৈঠক; সমস্যা সমাধানের আশ্বাস

OURISLAM24.COM
মার্চ ১৮, ২০১৮
news-image

আতাউর রহমান খসরু: প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন বীরবিক্রমের সঙ্গে বৈঠক সম্পন্ন করেছেন হাইআতুল উলয়াভূক্ত ৫ বোর্ডের নেতৃবৃন্দ।

বোর্ডগুলো হলো- সিলেট আজাদ দীনি এদারা, তানজিমুল মাদারিসিল কওমিয়া, জাতীয় দীনি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড, বেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া গওহরডাঙ্গা ও ইত্তেহাদুল মাদারিসিল কওমিয়া।

আজ রোববার বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সামরিক সচিবের অফিসে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। হাইআতুল উলয়ার অপর বোর্ড  বেফাকের সঙ্গে বেশ কিছু বিষয়ে দ্বিমত থেকেই এ বৈঠক।

অত্যন্ত আন্তরিকতাপূর্ণ পরিবেশে বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে বলে আওয়ার আওয়ার ইসলামকে জানান সিলেট এদারার প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা এনামুল হক।

তিনি বলেন, সামরিক সচিব আমাদের কথা মনোযোগ দিয়ে শুনেছেন, নোট নিয়েছেন এবং সমাধানের ব্যাপারে আশ্বস্ত করেছেন।

সামরিক সচিবের কাছে ৫ বোর্ডের দাবিগুলো লিখিত আকারে প্রদান করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মাওলানা এনামুল হক।

দাবিগুলো হলো, হাইআতুল উলয়ার কমিটিতে বেফাক বোর্ডের বাইরে অন্যবোর্ড থেকে একজন কো চেয়ারম্যান দেয়া।

হাইআতুল উলয়ার বৈঠকে ৫ বোর্ডের নেতা বা প্রতিনিধি অনুপস্থিত থাকলে কোরাম পূর্ণ না হওয়া। পাঁচবোর্ডের জন্য মহাসচিব পদ তৈরি করা এবং মাদরাসাগুলো যে কোনো বোর্ডে চাইলে যেতে পারে এ স্বাধীনতা থাকা।

এর আগেও গত বছরের ৮ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন বীরবিক্রমের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন পাঁচ বোর্ডের নেতৃবৃন্দ।

পূর্বের বৈঠকের সঙ্গে আজকের বৈঠকের কোনো গুণগত পার্থক্য আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, পার্থক্যের জায়গাটা হলো তিনি এবার সবকিছু নোট নিয়েছেন এবং দ্রুততম সময়ে সমস্যার সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন।

এছাড়াও আগের বৈঠকে আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ ও মুফতী রুহুল আমীন অংশগ্রহণ করেন নি। এবারের বৈঠকে তাদের উপস্থিতি অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ।

গত ১২ মার্চ হাটহাজারী মাদরাসায় অনুষ্ঠিত বৈঠকে যে ৪টি মাদরাসার পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে তাদের ব্যাপারে বেফাক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি নিষ্পত্তি করার আশ্বাসও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, ইত্তেহাদুল মাদারিসিল কওমিয়ার মহাসচিব আল্লামা আবদুল হালিম বুখারী, জাতীয় দীনি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসউদ ও মহাসচিব মুফতি মুহাম্মদ আলী, তানজিমুল মাদারিসিল কওমিয়ার সভাপতি মাওলানা আরশাদ রাহমানী ও মাওলানা মাহমুদুল আলম, বেফাকুল মাদারিসিল কওমিয়া গওহরডাঙ্গার মুফতি রুহুল আমিন ও সিলেট আজাদ দীনি এদারার মহাসচিব মাওলানা আবদুল বছির, প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা এনামুল হক ও নির্বাহী সদস্য মাওলানা ইউসুফ খাদিমানী।

তবে প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন বীরবিক্রম ব্যতীত আর কোনো সরকারি কর্মকর্তা সেখানে উপস্থিত ছিলেন না।

এদিকে গত ১২ মার্চ দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারীতে অনুষ্ঠিত বৈঠক প্রত্যাখ্যানসহ পাঁচ বোর্ডের দাবিগুলো আজকালের মধ্যে হাইয়াতুল উলয়ার চেয়ারম্যান আল্লামা আহমদ শফীকে জানানো হবে বলেও জানিয়েছেন বোর্ডগুলোর নেতৃবৃন্দ।

প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিবের সঙ্গে দুপুরে ৫ কওমি শিক্ষাবোর্ডের বৈঠক