সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮

‘যে কোনো সংকটে হুইল চেয়ারে বসেই তিনি রাজপথে নেমে আসতেন’

OURISLAM24.COM
ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৮
news-image

আওয়ার ইসলাম: হযরত মুহাম্মাদুল্লাহ হাফেজ্জী হুজুর রহ.-এর বড় ছেলে, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের সাবেক আমীরে শরীয়ত মাওলানা শাহ আহমাদুল্লাহ আশরাফ-এর ইন্তিকালে গভীর শোকপ্রাকশ করেছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর মহাসচিব, হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমীর ও ঢাকা মহানগর সভাপতি আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী।

আজ (২৩ ফেব্রুয়ারী) সকালে প্রদত্ত এক শোকবার্তায় আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, আমি মরহুম মাওলানা শাহ আহমাদুল্লাহ আশরাফ-এর জন্য মহান আল্লাহর শাহী দরবারে করজোড়ে ফরিয়াদ জানাচ্ছি, তিনি যেন তাঁর এই মুখলিস দ্বীনের দায়ী ও বুযূর্গ আলেম বান্দাহকে মাগফিরাত দান করে নিজ রহমতের শীতল চাদরে আবৃত করে চিরস্থায়ী জান্নাতের উঁচু মাকামের মেহমান করে নেন। মরহুমের ইন্তিকালে জাতি এক প্রতিথযশা বাযূর্গ আলেম এবং দেশ, জাতি ও মানবতার তরে নিবেদিতপ্রাণ কৃতি সন্তানকে হারাল।

আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী আরো বলেন, ইলমে হাদীস ও মাদ্রাসা শিক্ষার প্রচার-প্রসারে ব্রত থাকার পাশাপাশি ইসলাহী বয়ান এবং তাসাউফ ও সুলূকের লাইনে মরহুম হযরত বহু খেদমত করে গেছেন। জীবনের শেষ প্রান্তে এসেও অসুস্থ শরীর নিয়ে তিনি ঈমান-আক্বীদার আন্দোলনে এবং দেশ-জাতি ও মানবতার যে কোন সংকটে হুইল চেয়ারে বসে রাজপথে নেমে আসতেন।

তাঁর বর্ণাঢ্য কর্মজীবন এই দেশের আলেম সমাজ ও সৎরাজনীতিবিদদের জন্য এক অনুকরণীয় আদর্শ হয়ে থাকবে।

শোকবার্তায় জমিয়ত মহাসচিব আরো বলেন, মরহুম মাওলানা আহমাদুল্লাহ আশরাফ অধ্যাপনা শেষ করার পর হায়াতের পুরো সময়টাই ইলমের হাদীসের ও তাসাউফের দরস দিয়ে অগণিত আলেমে-দ্বীন তৈরিতেও বিশাল ভূমিকা রেখে গেছেন। ইলমি খিদমত ও রাজনৈতিক নেতৃত্বে প্রজ্ঞা ও পরিশুদ্ধ আমলের ক্ষেত্রে তার অবস্থান ছিল ঈর্ষনীয়।

শোক বার্তায় আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী মরহুম মাওলানা আহমাদুল্লাহ আশরাফ-এর অগণিত খলীফা, মুরীদ, ছাত্র, ভক্ত, শুভানুধ্যায়ী এবং শোকসন্তুপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন এবং তাঁদের সকলের সবরে-জামিলের জন্য দোয়া করেন।

হাফেজ্জী হুজুরের বড় ছেলে মাওলানা আহমাদুল্লাহ আশরাফের ইন্তেকাল