শুক্রবার, ২২ জুন ২০১৮

ইজতেমায় ১০২ দেশ; চিল্লায় বেরুচ্ছে প্রায় ২৫০০ জামাত

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ১৪, ২০১৮
news-image

আওয়ার ইসলাম: ৫৩ তম বিশ্ব ইজতেমার ১ম পর্ব থেকে ২৫০০ জামাত চিল্লার জন্য বেরুচ্ছে বলে জানা গেছে।

আজ রোববার শেষ হওয়া  ইজতেমা থেকে এক চিল্লা তিন চিল্লা ও সালের জন্য এসব জামাত দেশের বিভিন্ন প্রান্তে দীনের মেহনত নিয়ে ছুটে যাবে।

তাশকিলের কামরার সূত্রে আওয়ার ইসলাম জানতে পেরেছে, ২১০০ জামাত ইতোমধ্যেই নাম লেখিয়েছে। ময়দানে অবস্থানরত আরও অনেকে জামাতবন্দি হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। সব মিলিয়ে এবারের ইজতেমা থেকে প্রায় ২ হাজার ৫ শ জামাত বেরুবে।

জানা যায়, এর মধ্যে বিদেশি জামাত রয়েছে ২৮ টি। রয়েছে মাস্তুরাতের (নারী) জামাত। তবে মাস্তুরাতের জামাত সংখ্যা জানা যায়নি।

সূত্র জানায়, এবারের ইজতেমায় ১০২টি দেশ থেকে ১২ হাজার তবলিগের সাথী এবারের ইজতেমায় অংশ নিয়েছেন। আরব বিশ্বের সাথীদের উপস্থিত এবার তুলনামূলক বেশি বলে ধারণা করছেন মুরব্বিগণ। মঞ্চে এবারই প্রথম কোনো আরব শায়খ বয়ান রেখেছেন।

বাংলাদেশের সর্বস্তরের শীর্ষ ওলামায়ে কেরামের উপস্থিতি এবার ছিল চোখে পড়ার মতো। তাবলিগের আলেম উপদেষ্টা সদস্যরা ছাড়াও দেশের শীর্ষ আলেমগণ ময়দানে স্বতষ্ফূর্তভাবে অস্থান করেছেন।

বরাবরের মতোই এবারও ইজতেমার দ্বিতীয় দিন সুন্নত মুতাবেক বিয়ে পড়ানো হয়। উলামাদের উদ্দেশ্যে খাস বয়ান করেন মাওলানা যুবাইর আহমদ। স্কুল কলেজ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বয়ান করেন ডাক্তার আবদুল আওয়াল কাকরাইল। মাদরাসা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বয়ান করেন কাকরাইলের মুরব্বি মাওলানা ওমর ফারুক।

ইজতেমায় এবারই প্রথম বাংলা ভাষায় হেদায়েতি বয়ান ও মুনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। ইতোপূর্বে নিজামুদ্দিনের মুরব্বিরাই এ দুটি দায়িত্বে থাকতেন। তবে মাওলানা সাদ এবারের ইজতেমায় অংশ নিতে না পারায় কাকরাইলের মুরব্বিগণই বয়ান ও মুনাজাত করেন।

উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারি শুক্রবার বাদ ফজর জর্ডান মারকাজের আমির শায়খ ওমর আল খতিবের আম বয়ানের মাধ্যমে শুরু হয়ে এবারের ইজতেমার প্রথম পর্ব। বোরবার কাকরাইলের মুরব্বি ও শুরা সদস্য মাওলানা যুবায়ের আহমদের বয়ান ও কান্নাবিজরিত মুনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয় ইজতেমা।

গাইড ও নোটবুক মাদরাসার ছাত্রদের জন্য বিষের মতো: মুফতি শামসুদ্দিন জিয়া