মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮

পাকিস্তানে ধর্ষণের পর শিশু হত্যার প্রতিবাদে সন্তান কোলে নারী কর্মীর সংবাদ পাঠ

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ১২, ২০১৮
news-image

শাহনূর শাহীন: পাকিস্তানে ৮ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার প্রতিবাদে তুমুল আলোচনা সৃষ্টি করেছে এক নারী সংবাদ পাঠিকার হৃদয়স্পর্ষী প্রতিবাদ।

পাকিস্তানি টেলিভিশন চ্যানেল সামা টিভি-র জনপ্রিয় সংবাদ পাঠিকা কিরণ নাজ নিজের শিশু কন্যাকে কোলে নিয়ে সংবাদ করেন। এ সময় তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

সংবাদ পাঠের সময় নিয়মানুযায়ি নিজের পরিচয় না দিয়ে কিরণ নাজ বলেন, ‘আজ আমি কিরণ নাজ নই, আজ আমি একজন মা, তাই আজ আমি আমার মেয়েকে নিয়ে বসেছি।’

দুই মিনিটের বক্তব্যে কিরণ বলেন, ‘সবচেয়ে ছোট কফিনের ওজন সবচেয়ে বেশি, আর আজ গোটা পাকিস্তান সেরকমই একটা কফিনের চাপে জর্জরিত’।

নাজ নিজের বলেন মেয়েটির মা-বাবা যখন  তার লম্বা জীবনের জন্য (পবিত্র ক্বাবায়) আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করছেন তখন তার জীবনের শেষদিন ঘনিয়ে এলো তাও এরকম নারকীয় ভাবে।

তিনি বলেন, এটা শুধু একটি শিশুর মৃত্যু নয় গোটা সমাজের মৃত্যু। এদিকে নিহত শিশুটির বাবা দেশে ফিরে জানিয়েছেন যতক্ষণ না সুবিচার মিলছে ততক্ষণ তিনি মেয়ের মৃতদেহ কবর দেবেন না।

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি পাকিস্তানের কসুরে কোচিং থেকে বাড়ি ফেরার পথে ৮ বছরের এক বালিকাকে ধর্ষণ করে খুন করা হয়।

মেয়েটির আত্মীয়রা সিসিটিভি ফুটেজের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় দেয়ার পর ঘটনাটি ব্যাপক ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, মেয়েটির সঙ্গে একজন অচেনা মানুষ রয়েছেন। যিনি বাচ্চাটিকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছেন।

এ ঘটনায় পাঞ্জাবে ব্যাপক বিক্ষোভ সৃষ্টি হয়। এমনকি পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণে রাখতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে দুজন প্রতিবাদীর মৃত্যুও হয়েছে।

মেয়েটির মা-বাবা সেসময় ওমরা করার জন্য সৌদি আরবে গিয়েছিলেন। সুত্র: পাকিস্তান ডেইলি।

এসএস/