বুধবার, ২০ জুন ২০১৮

সহ সভাপতির পদ বহালের ঘোষণা নিয়ে মুফতি ওয়াক্কাসের প্রতিক্রিয়া

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ৭, ২০১৮
news-image

আতাউর রহমান খসরু: জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সহ-সভাপতি পদে মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাসকে পুনরায় বহালের ঘোষণা দিয়েছেন অপর সহ-সভাপতি আল্লামা শায়খ জিয়াউদ্দিন। সিলেটে আজ এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা শাহিনুর পাশা চৌধুরীসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নেতৃবৃন্দ্র সবাইকে পদ পদবীর দিকে না তাকিয়ে জমিয়তকে শক্তিশালী করার তাগিদ দেন।

সহসভাপতির পদে বহালের ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানতে মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফয়সালার প্রতি এখনো পুরোপুরি সন্তুষ্ট নয় বলেই জানান।

মুফতি ওয়াক্কাস আওয়ার ইসলামকে বলেন, আমাকে স্বপদে বহাল করার কথা বলা হচ্ছে।  কিন্তু তা করা হলো কোথায়? আমার পদ তো নির্বাহী সভাপতি। আমাকে সহ-সভাপতি করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, কাউন্সিল আমাকে নির্বাহী সভাপতি করেছে। তারা সাংবিধানিকভাবে নির্বাহী সভাপতির পদ বিলুপ্ত করেছে। এখন বলা হচ্ছে, সংবিধানে নির্বাহী পদ নেই।

মুফতি ওয়াক্কাস বলেন, আমার পক্ষ থেকে যারা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেছিলেন তাদের সঙ্গে এখনো বিস্তারিত কথা হয়নি। তাদের সঙ্গে সাক্ষাতে কথা বলে ঘোষণার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবো।

পূর্ব ঘোষিত কনভেনশন হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, কনভেনশন হবে।  ঠিক তারিখেই হবে। আমার পদই একমাত্র সমস্যা না।  সমস্যা তো আরও আছে। সব সমস্যা সামনে রেখেই কনভেনশন আহবান করা হয়েছে।

সভাপতির আহবানে অনুষ্ঠিত আজকের বিশেষ বৈঠকে মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাসের পক্ষ থেকে মাওলানা মনসুর আহমদ রায়পুরী ও মাওলানা শেখ মুজিবুর রহমান অংশগ্রহণ করেন।

মাওলানা মনসুর আহমদ রায়পুরীর কাছে বৈঠক সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের বলা হয়েছিলো মুফতী সাহেবের নির্বাহী পদ ফিরিয়ে দেয়া হবে। এই কথার উপর আমরা আজকের বৈঠকে শরিক হই। কিন্তু সেখানে যাওয়ার পর আমরা হতাশ হয়েছি।

মুফতী ওয়াক্কাসের দলীয় পদই কি একমাত্র সমস্যা? উত্তরে তিনি বলেন, না। আরও অনেক সমস্যা আছে। তবে আমরা মনে করি তিনি নির্বাহী পদ ফিরে পেলে বাকি সমস্যাগুলো ধীরে ধীরে সমাধান করা যাবে।

[এটি অ্যাপে হাজারও বয়ান ও ইসলামি বই; ইনস্টল করুন ইসলামী যিন্দেগী 
শরীরকে ব্যথামুক্ত রাখতে চিকিৎসা নিন আশশিফা হিজামাহ সেন্টারে]

তিনি আরও জানান, আমরা এখনো ঐক্য প্রত্যাশী।  মাওলানা শাহীনুর পাশা আজকের বৈঠকের মূল উদ্যোক্তা। তিনি আমাদের বলেছেন ১০ তারিখ পর্যন্ত তিনি চেষ্টা করবেন।

সবকিছুর পরও যথা সময়ে কনভেনশন হওয়ার কথা জানান এ নেতা।

উল্লেখ্য, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সভাপতি খলিফায়ে মাদানি আল্লামা আবদুল মুমিন (শায়খে ইমামবাড়ী) আজ সিলেটে অনুষ্ঠিত জমিয়তের কেন্দ্রীয় জরুরি আমেলায় মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাসের সহ সভাপতি পদ বহালের ঘোষণা দেন।

সভাপতির বিশেষ ক্ষমতা বলে এ বৈঠক ডাকেন শায়খ আবদুল মুনিন।

এসময় দলের সহসভাপতি আল্লামা শায়খ জিয়াউদ্দিন ও মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহিনূর পাশা চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয় আমেলার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বশীল ও সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন৷

এর আগে ৯ ডিসেম্বর কার্যনির্বাহী পরিষদের এক বৈঠকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ এবং অসাংবিধানিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার অভিযোগে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সহসভাপতি মুফতী মুহাম্মদ ওয়াক্কাসের নির্বাহী সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছি।

বুখারি শরিফের হিফজ; হাফেজ হাবিবুল্লাহ’র অসাধ্য সাধন