২০১৭-১১-১৯

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮

সৌদিতে অভিযানে ২৪ হাজার বিদেশি গ্রেফতার

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম : সৌদি আরবে ভিসার শর্ত ভঙ্গের অভিযোগে ২৪ হাজার ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। সৌদি প্রেস অ্যাজেন্সি (এসপিএ) শনিবার জানিয়েছে, গত তিনদিনে এই অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। খবর আরব নিউজের।

ওই ব্যক্তিদের মধ্যে ১৫ হাজার সাতশ দুই জনকে ইকামার অর্থাৎ বসবাসের নিয়ম ভঙ্গের অভিযোগে আটক করা হয়েছে। তিন হাজার আটশ ৮৩ জনকে সীমান্ত নিরাপত্তা এবং চার হাজার তিনশ ৫৩ জনকে শ্রম আইন ভঙ্গের অভিযোগে আটক করা হয়েছে। সৌদি আরবে অবৈধভাবে প্রবেশের সময় তিনশ ৯৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

দেশটির প্রবাসী প্রশাসন জানিয়েছে, নিয়ম ভঙ্গের অভিযোগে তারা আট হাজার চারশ ৩৩ জনকে আটক করেছে। এদের মধ্যে সাত হাজার চারশ ৯১ জন পুরুষ এবং নয়শ ৪২ জন নারীও রয়েছে। ওই প্রবাসীদের আশ্রয় দেয়ার অভিযোগে ২৫ জন সৌদি নাগরিককে আটক করা হয়েছে।

অধিকাংশ ব্যক্তিকেই মক্কা থেকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া রিয়াদ, আসির, জাজান এবং পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোতেও অভিযান চালানো হয়। এদিকে সৌদি আরবে অবস্থানরত বিদেশিরা তাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর দেশে ফেরার জন্য অতিরিক্ত ৬০ দিন সময় পাবেন বলে জানিয়েছে দেশটির পাসপোর্ট অধিদপ্তর।

দেশটির জেনারেল ডিরেক্টরেট অব পাসপোর্ট (জিডিপি) দাপ্তরিকভাবে বিষয়টি অনুমোদন দিয়েছে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশিদের ভিসা কঠোর করেছে সৌদি আরব সরকার।

এর আগে এ বছরের মার্চে সৌদি আরবে অবৈধভাবে বসবাস করা বিদেশিদের বৈধ কাগজপত্র সংগ্রহ করতে ৯০ দিনের সময় বেঁধে দেওয়া হয়। ওই সময়ে দেশটির তৎকালীন উপপ্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ বিন নায়েফ ‘এ নেশন উইদাউট ভায়োলেশনস’ নামের এক কর্মসূচির আওতায় অবৈধ বিদেশি নাগরিক ও শ্রমিকদের ৯০ দিনের ‘সাধারণ ক্ষমা’ ঘোষণা করেন। ২৯ মার্চ থেকে এটি কার্যকর হয়।

তখনকার সরকারি ঘোষণায় বলা হয়, অনুমতি ছাড়া বসবাস, ইকামা বা সরকারি অনুমতি না নিয়ে কাজ করা এবং সৌদি আরবে অবৈধ অনুপ্রবেশের মতো অপরাধের ক্ষেত্রে সাধারণ ক্ষমা প্রযোজ্য হবে। এই সময়ের মধ্যে অবৈধ ব্যক্তিরা কোনও শাস্তি ছাড়াই নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার সুযোগ পাবেন।

২০১৩ সালে এমনই এক অভিযান চালিয়েছিল সৌদি কর্তৃপক্ষ। এতে ২৫ লাখেরও বেশি অবৈধ অভিবাসী সৌদি আরব ছেড়ে যেতে বাধ্য হন। সূত্র: আরব নিউজ