২০১৬-১০-০৭

সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

পাকিস্তানে ‘অনার কিলিং’ ও ধর্ষণ বিরোধী আইন পাস

OURISLAM24.COM
news-image

pakistan_honorkillingআওয়ার ইসলাম: পাকিস্তানে ‘অনার কিলিং’ তথা পরিবারের সম্মান রক্ষার নামে হত্যা ও ধর্ষণ বিরোধী বিল পাস হয়। পার্লামেন্টের এক যৌথ অধিবেশনে বৃহস্পতিবার সর্বসম্মতিক্রমে বিলগুলো পাস হয়। আর এর মধ্য দিয়ে বিলগুলো আইনে পরিণত হবে।

পাকিস্তানে তথাকথিত ‘অনার কিলিং’ এর ঘটনা প্রায়ই ঘটে। এ ধরনের ঘটনায় পরিবারের সদস্যরা ক্ষমা করে দিলে অপরাধীরা ছাড়া পেয়ে যেতেন।

এই আইনের বিরোধিতা করে ২০১৫ সালে ফৌজদারি আইনে সংশোধনী এনে সিনেটে অ্যান্টি অনার কিলিং আইন-২০১৫ এবং অ্যান্টি রেপ বিল-২০১৫ উত্থাপন করা হয়। তবে সে সময় জাতীয় পরিষদে আইন দুটি পাস করতে ব্যর্থ হয় সে দেশের সরকার।

পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদে বৃহস্পতিবার দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এই আইন পাস হয়েছে। এতে হত্যাকারীর যাবজ্জীবন সাজার বিধান রাখা হয়েছে। যদি হত্যার শিকার হওয়া পরিবার অপরাধীকে ক্ষমা করে দেন তবুও হত্যাকারী ওই সাজা থেকে মুক্তি পাবে না। কিন্তু ভুক্তভোগীর পরিবার ক্ষমা করে দিলে দণ্ড মওকুফ হতে পারে। কিন্তু সেক্ষেত্রেও অপরাধীকে বাধ্যতামূলকভাবে সাড়ে ১২ বছরের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।

ধর্ষণ বিরোধী আইনে অপরাধীর জন্য ২৫ বছরের কারাদণ্ড বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ধর্ষণ বিরোধী মামলার রায় তিন মাসের মধ্যে দিতে হবে এবং ছয় মাসের মধ্যে আপিল করার সুযোগ থাকবে।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানে প্রতিবছর তথাকথিত ‘অনার কিলিং’ এর ঘটনার শিকার হন কয়েকশ নারী । পরিবারের সম্মান রক্ষার নামে ভাইয়ের হাতে দেশটির ফেসবুক তারকা কান্দিল বালুচ খুন হওয়ার তিন মাস পর পাকিস্তানে এমন আইন পাস হলো।

আরআর