All posts by ourislam

কওমি স্বীকৃতি নিয়ে সিলেটে গোলটেবিল বৈঠক কাল

আওয়ার ইসলাম: সিলেট নগরীর দারুল আজহার মডেল মাদরাসা ক্যাম্পাসে বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) দুপুর ২টায় ‘কওমি স্বীকৃতি, সাম্প্রতিক বাস্তবতা ও তরুণ আলেমদের ভাবনা’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

বৈঠকের আয়োজক কওমি মিডিয়া ফোরাম ও অনলাইন মিডিয়া কওমিকণ্ঠ ডটকম।

বৈঠকে আলোচক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, আযাদ দ্বীনী এদারায়ে তা’লীম বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা আব্দুল বছীর, লেখক, গবেষক, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সিলেট বিভাগীয় উপ-পরিচালক মাওলানা শাহ নজরুল ইসলাম, লেখক, গবেষক, জামিয়া মাদানিয়া ইসলামিয়া কাজিরবাজার মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা শাহ মমশাদ আহমদ, কবি ও গবেষক মাওলানা মুসা আল হাফিজ।

এছাড়াও বৃহত্তর সিলেটের বিশিষ্ট আলেম, মুহাদ্দিস, লেখক, সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদরা উপস্থিত থাকবেন।

সভাপতিত্ব করবেন কওমি মিডিয়া ফোরামের সভাপতি হহাফিজ মাওলানা তাজুল ইসলাম হাসান।

কওমিকণ্ঠ সম্পাদক মাওলানা ইমদাদুল হক নোমানীর সঞ্চালনায় গোলটেবিল বৈঠকে শিরোনামের উপর আলোচনা করবেন লেখক, গবেষক হাফিয মাওলানা এহতেশামুল হক ক্বাসিমী।

বৃহস্পতিবার যাত্রাবাড়ী মাদরাসায় তাবলীগের শূরা ও আলেমদের বৈঠক

আওয়ার ইসলাম: তাবলীগ জামাতে সৃষ্ট সঙ্কট নিরসনে গঠিত ৫ সদস্যের কমিটি আগামীকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর জামিয়া মাদানিয়ায় বৈঠকে বসবে।  তাবলীগের শূরার সদস্যগণও বৈঠকে উস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

গত মাসের ২৯ তারিখ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসায় তাবলীগ জামাতের মুরব্বি ও আলেমদের যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছিল সেখানে ৫ সদস্যের এ কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি চলমান সমস্যাগুলো নিয়ে কাল প্রথমবারের মতো বৈঠকে বসবে।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার বাদ ফজর এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বেঠকে চলমান সব বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে।

কমিটির ৫ সদস্য হলেন, কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের সিনিয়র সহসভাপতি ও জামিয়া শরইয়্যাহ মালিবাগের মুহাতামিম আল্লামা আশরাফ আলী, শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠের খতিব আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসউদ, মজলিসে দাওয়াতুল হকের আমির মহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমুদুল হাসান, বেফাকের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা আবদুল কুদ্দুস ও মিরপুর মারকাযুদ দাওয়া’র আমিনুত তালিম মাওলানা আবদুল মালেক।

এর আগে গত ১১ নভেম্বর তাবলীগের সঙ্কটগুলো নিয়ে উলামা মাশায়েখ পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয় রাজধানীর উত্তরার আয়েশা মসজিদে। সেখানে বাংলাদেশের শীর্ষ আলেমগণ এ বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেন এবং ৫ সদস্যের কমিটির ফয়সালা প্রতি অপেক্ষার কথা বলা হয়।

এ কারণে আলেমগণের প্রত্যাশা চলমান সব সঙ্কট নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে আগামীকালের বৈঠক।

কাকরাইল মারকাজের শূরায় নতুন ৬ সিদ্ধান্ত

একজন নেহাল ও আমার ওপেনিয়ন

মুফতি আরিফ মাহমুদ হাবীবি
লেখক, শিক্ষক

ডাক নাম নেহাল। সে কওমি মাদরাসায় পড়াশুনা করেছে এককালে। ছেলেটা বিশ্বায়নের যুগে বহু চ্যালেঞ্জকে মোকাবেলা করে নিজেকে দাঁড় করিয়েছে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের গর্বিত ছাত্র হিসেবে। এটা ওর প্রাপ্তির পাশাপাশি আমাদেরও প্রাপ্তি।

ছেলেটা নিঃসন্দেহে জিনিয়াস। সে সাংবাদিকতায় পড়ে সুবাধে কাজ করতে গিয়ে মিশতে হয় সবার সাথে। মনে রাখতে হবে সে আমাদেরই ছেলে। আমাদের হয়ে একদিন কাজ করবে এটাই চাওয়া।

শুনেছি সে কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন দৈনিকে ফিচার লিখে। ইউনিভার্সিটিতে পড়লে কিছু কালাম থাকতেই পারে, তারই সূত্র ধরে ওর কিছু ছবি সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। যা লজ্জাজনক নিঃসন্দেহে। কতটা হিনমন্যতার পরিচয় দিচ্ছি আমরা এই ছবিগুলো প্রকাশ করে!

কেউ কেউ তো ওকে পেলে অনেক কিছু করে ফেলবেন মর্মে ঘোষণাও দিয়ে ফেলেছেন। বারে! একবার ভেবেছেন এতকিছু করার অধিকার আপনাকে কে দিল? দাড়ি টুপি নিয়ে তাকে যাতা বলছেন। তবে কি দাড়ি কাটার আর ইসলামি লেবাস পরিত্যাগের পরামর্শ দিচ্ছেন আপনারা?

অথচ আমরা নিজেদের মিডিয়া চাই, যোগ্য সাংবাদিক চাই!! আমাদের ঘরাণার লোকদের যদি আমরা নিজেদের কাছে টানতে না পারি তবে এটা হবে আমাদের জন্য ভয়ানক বিপদজনক!

ক্ষণে ক্ষণে আমরা সংবাদ মাধ্যমের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করছি। আমাদের ছেলেদের মিডিয়ায় আসা কতটা জরুরি হারে হারে আমরা টের পাচ্ছি। এ দুর্যোগপূর্ণ সময়ে দূরে ঠেলে নয় চাই ভালোবাসা। সবাই তো বিরুদ্ধেই লিখে, অন্তত আমাদের কর্মের কারণে যেন আমাদের লোক প্রতিপক্ষ না হয় এটা হবে দুরদর্শি চিন্তা।

ছেলেটা ইউনিভার্সিটিতে সাংবাদিকতায় পড়েও নিজের স্বকীয়তা ধরে রাখতে পেরেছে এটা কেও দেখছে না বরং তার চৌদ্ধগোষ্ঠি উদ্ধারের চিন্তা! ওর জন্য দোয়া করুন সে যেন আমাদের হয়ে লিখতে পারে। আর সত্যিকারার্থে ওর ভালো চাইলে তাকে গোপনে পরামর্শ দিন- যেন দাড়ি টুপির ইজ্জত রাখে। এটা হবে দাঈর কাজ।

যেভাবে আমরা সমালোচনা করছি একবার চিন্তা করে দেখুন ও যদি সত্যিই আপনার উস্কানিতে বিগ্রে যায় তাহলে আপনার অবস্থা কোথায় যাবে? একজন আলেম হয়ে, একজন সমঝদার হয়ে অন্যকে ভুল পথে তুলে দিচ্ছেন। যেখানে আপনার উচিত ভুল মানুষকে মমতা দিয়ে টেনে আনা।

একই সঙ্গে আমি নেহালকেও বলবো, ব্যক্তিগত জীবনে নিজেকে আরও স্বচ্ছভাবে উপস্থাপন করতে হবে। সমালোচনার সুযোগ তৈরি করে দেয়া কিংবা স্রোতের বিপরীতে দাঁড়ানো আগামী দিনে পথচলার ক্ষেত্রে তোমাকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। যৌক্তিক সমালোচনাগুলো আশা করি শুধরে নাও। বাকিগুলো রেখে দাও কোনো কালে স্মৃতি হয়ে সুখ দেবে।

‘হুজুর, আবার কীয়ের ইশটুডেন্ট’

রাশিয়ার বিমান হামলায় সিরিয়ায় শিশুসহ নিহত ৫৩

আওয়ার ইসলাম: সিরিয়ায় তিন দফা বিমান হামলায় শিশুসহ ৫৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ধ্বংসস্তূপের নিচে আরও অনেকের মৃতদেহ থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সোমবার দেশটির আতারেব শহরে হামলার এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হামলার মূল লক্ষ্য ছিল বিদ্রোহী অধ্যুষিত স্থানীয় একটি সুপার মার্কেট। মার্কেটটিতে প্রায় শতাধিক ছোট-বড় দোকান ছিল।

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হোয়াইট হেলমেট জানায়, হতাহতদের মধ্যে অনেক শিশুও রয়েছে। ভগ্নস্তূপের নিচ থেকে বাকিদের উদ্ধারে স্থানীয়দের পাশাপাশি কাজ করছে স্বেচ্ছাসেবী দলগুলো।

এখনও কেউ হামলার আনুষ্ঠানিক বিবৃতি না দিলেও স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোর দাবি, রুশ বিমান- সুখয় থেকে ছোঁড়া হয় মিসাইলগুলো।

নিরাপদ জোনের আওতায় পড়ে আলেপ্পো প্রদেশের এ শহরটি।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নিজস্ব তদন্তকে হোয়াইটওয়াশ বলল অ্যামনেস্টি

আওয়ার ইসলাম: রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সহিংসতার ব্যাপারে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নিজস্ব তদন্তকে হোয়াইটওয়াশ হিসেবে বর্ণনা করেছে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। একইসঙ্গে দেশটিতে জাতিসংঘ এবং অন্যান্য স্বাধীন পর্যবেক্ষণ সংস্থার সদস্যদের পর্যবেক্ষণের অবাধ সুযোগদানের আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক জেমস গোমেজ এক বিবৃতিতে বলেন, গত কয়েক মাসে ৬ লাখের বেশি নারী, পুরুষ ও শিশু প্রাণ বাঁচাতে রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়েছে। সুস্পষ্ট প্রমাণ রয়েছে যে, সামরিক বাহিনী রোহিঙ্গাদের হত্যা করেছে, ধর্ষণ করেছে এবং তাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে।

গত ২৫ আগস্টের পর থেকে রাখাইন রাজ্যের উত্তরাঞ্চলে সহিংসতার তদন্তের রিপোর্ট প্রকাশের জবাবে তিনি বিবৃতিতে বলেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী পুনরায় রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে পরিচালিত ভয়াবহ নির্যাতনের ঘটনা আড়াল করার চেষ্টা করছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, উপগ্রহের মাধ্যমে পাওয়া ক্রমবর্ধমান বিপর্যয়ের ছবি বিশ্লেষণ করে অগণিত ভয়ঙ্কর ঘটনার বিবরণ পাওয়ার পরে ‘আমরা একটি মাত্র উপসংহার টানতে পারি এই হামলা মানবতার বিরুদ্ধে সীমাহীন অপরাধ।’

বিবৃতিতে বলা হয়, যতক্ষণ জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন এবং অন্যান্য স্বাধীন সংস্থার পর্যবেক্ষকরা বিষয়টি তদন্তে মিয়ানমারে অবাধ সুযোগ না পাবে ততক্ষণে রোহিঙ্গা ও অন্যান্য সংখ্যালঘু জাতি গোষ্ঠির ওপর ভয়াবহ নির্যাতনের পূর্ণ বিবরণ পাওয়া যাবে না।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বিষয়টির স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার ব্যাপারে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর কোন ইচ্ছা নেই। দেশটি যাতে এই ভয়াবহ নির্যাতন ও নৃশংসতার অপরাধের শাস্তি এড়াতে না পারে, সেজন্য আন্তর্জাতিক মহলকে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

কাকরাইল মারকাজের শূরায় নতুন ৬ সিদ্ধান্ত

হামিম আরিফ
বিশেষ প্রতিবেদক

তাবলীগ জামাতের কাকরাইল মারকাজ মসজিদে আজ সকালে ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে বেশ কিছু নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে শূরা কমিটি। আসন্ন জোড় ইজতেমার খিত্তা বণ্টন নিয়ে সাময়িক যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছিল কাকরাইলের মুরব্বিগণ তা নিরসন করেছেন। কাকরাইলের পরিস্থিতিও আগের মতো স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানা যায়।

সূত্র জানায়,  মঙ্গলবার সকালে ৫ দিনের জোড় নিয়ে যে ঘটনা ও উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছিল তা নিরসনে দুপুরে বৈঠকে বসেন তাবলীগের শূরার সদস্যগণ। বৈঠকে ঢাকা জেলার ডিসি ও রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত ওসিও ছিলেন।

জানা যায়, ভবিষ্যতে এ ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সবার মতামত ও পরামর্শের ভিত্তিতে ৬টি বিষয়ে অঙ্গীকার করেন শূরার সদস্যগণ।

অঙ্গীকার নামায় বলা হয়, আমরা শূরার সদস্য ৮ জন আজ ১৪/১১/২০১৭ তারিখ দুপুর ২ টায় কাকরাইল মসজিদের মিটিংয়ে একমত হলাম যে-

১। ভবিষ্যতে কাকরাইল মসজিদের যে কোনো সভায় শূরার সদস্যদের মধ্যে তিন ভাগের দুই ভাগ সদস্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন এবং তারাই শুধুমাত্র সভায় উপস্থিত হবেন।

২। অন্য যেকোন বিষয়ও তিনভাগের দুই ভাগ সদস্য যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন সে সিদ্ধান্তই বলবৎ হবে।

৩। মাদরাসার ছাত্ররা উত্তরভাগ ব্যতীত দক্ষিণভাগে আসবেন না। ছাত্রদের পড়ানোর বিষয়টি শিক্ষকরা উত্তরভাগে গিয়ে সম্পাদন করবেন।

৪। সম্প্রতি যে বিষয় নিয়ে মতদৈন‍্যতা সৃষ্টি হয়েছে সে সব বিষয়ে তিনভাগের দুইভাগ শূরা সদস্য যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন সেটাই কার্যকর হবে।

৫। তাবলীগের কার্যক্রমে কেউ কোন অস্ত্র নিয়ে আসতে পারবেন না। কেউ নিয়ম ভঙ্গ করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

৬। আসন্ন বিশ্ব ইজতেমায় বিদেশি অতিথি আগমণের বিষয়ে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের উপস্থিতিতে যে সিদ্ধান্ত হয়েছে সে অনুযায়ী কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

অঙ্গীকার নামায় স্বাক্ষর করেন, মাওলানা জোবায়ের আহমদ, ওয়াসিফুর রহমান, মাওলানা রবিউল হক, মো. মোবরক, শাহাবউদ্দীন নাসিম, মোহাম্মদ হোছাইন, মাওলানা ওমর ফারুক।

কাকরাইলে হঠাৎ উত্তেজনা; পরিবেশ শান্ত, চলছে বৈঠক

ভিসা ছাড়াই ইসরাইলিদের ভ্রমণ সুবিধা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

আওয়ার ইসলাম: ক্ষমতা গ্রহণের পরপরই সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ট্রাম্প। যা নিয়ে সমালোচনা কম হয়নি। এবং দেশটি ইসরাইলি নাগরিকদের ভিসা ছাড়াই ভ্রমণের সুযোগ দিচ্ছে।

দেশটির আইনমন্ত্রী আয়ালেত শাকেদ সোমবার স্থানীয় গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর ডেইলি সাবাহার।

ইসরাইলি মন্ত্রী গণমাধ্যমকে বলেন, ভিসা ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের জন্য দুই দেশের মধ্যে একটি চুক্তি হয়েছে। চুক্তি কার্যকর হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র দেশটিতে ইসরাইলি নাগরিকদের প্রবেশে ভিসার শর্ত বাতিল করবে।

এর আগে তিনি এক টুইট বার্তায় বলেন, আমি যখন এ পোস্টটি দিচ্ছি তখন আমরা যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিশেষ ওয়ার্কিং গ্রুপের সঙ্গে কাজ করছি। ইসরাইলি নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে আর ভিসার প্রয়োজন হবে না। ইসরাইলি নাগরিকদের তথ্যের গোপনীয়তা সংরক্ষণে এটি করা হচ্ছে।

ইসরাইলের গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, ইসরাইলের নাগরিকদের পাসপোর্টে বায়োমেট্রিক তথ্য রয়েছে। এসব তথ্য অন্য কোনো দেশ বা সংস্থা জানুক তা তারা চায় না। এ কারণে তারা ভিসা লাগানোর জন্য এ পাসপোর্ট ব্যবহার করতে চায় না। নাগরিকদের ওইসব তথ্য গুরুতর কোনো অনুসন্ধানের কাজে ছাড়া ব্যবহার করা হয় না। এটি দেশটির সংসদে অনুমোদিত।

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের ৭ পরিচালকের পদত্যাগ

আওয়ার ইসলাম: সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের সাত পরিচালক পদত্যাগ করেছেন। এর মধ্যে চারজন স্বতন্ত্র ও তিনজন শেয়ারধারী পরিচালক।

চারজন স্বতন্ত্র পরিচালক হলেন- মো. আবদুর রহমান, আবদুল মহিত, এ এফ এম আসাদুজ্জামান ও মইনুল হাসান। বাকিদের নাম এখনো জানা যায়নি।

গতকাল সোমবার ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদের সভায় পদত্যাগ করেন তারা। ওই সভায় নতুন করে আরও নয়জন পরিচালক নিয়োগ দেওয়া হয়। এরই মধ্যে সাতজন স্বতন্ত্র ও দুজন শেয়ারধারী পরিচালক।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ব্যাংকটির চেয়ারম্যান আনোয়ারুল আজিম আরিফ জানান, ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে তারা পদত্যাগ করেছেন। নতুন নয় পরিচালককে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

গত ৩০ অক্টোবর ব্যাংকটির পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনায় বড় পরিবর্তন আসে। ব্যাংকটির চেয়ারম্যান, নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালককে (এমডি) হঠাৎ পদত্যাগ করতে হয়। ওই দিন বিশেষ নিরাপত্তাব্যবস্থার মধ্যে এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত হয়।

নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আনোয়ারুল আজিম আরিফ। নতুন এমডি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের অতিরিক্ত এমডি কাজী ওসমান আলীকে।

ইসলামি ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু করবে না ভারত

আওয়ার ইসলাম: ভারতীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক ‘রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া’ (আরবিআই) জানিয়েছে, দেশটিতে ইসলামি ব্যাংকিং প্রবর্তন করা হবে না।

এক প্রশ্নের জবাবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকটি জানিয়েছে, ব্যাংকিং ও আর্থিক পরিষেবায় সব নাগরিকের ‘বৃহত্তর ও সমান সুযোগের’ বিষয়টি বিবেচনা করার পর এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সুদহীন নীতিমালার ওপর ভিত্তি করে ইসলামি বা শরিয়াহ ব্যাংকিং ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত হয়ে থাকে।

এনডিটিভি’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আরবিআই এবং ভারত সরকার ভারতে ইসলামি ব্যাংকিং প্রবর্তনের বিষয়টি পরীক্ষা করে দেখেছে।

পিটিআইয়ের এক সাংবাদিকদের দাখিল করা আরটিআই আবেদনের জবাবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানায়, ব্যাংকিং ও আর্থিক পরিষেবায় সব নাগরিকের বৃহত্তর ও সমান সুযোগ প্রাপ্তির বিষয় বিবেচনা করার পর ইসলামি ব্যাংকিং চালুর প্রস্তাব আর এগিয়ে না নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তবে বিশ্লেষকদের অভিমত এতে করে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে দেশটি। কারণ সুদের সম্পৃক্ততা থাকার কারণে অনেক ধর্মের মানুষ ব্যাংকিং পরিষেবা ও পণ্য সংগ্রহ করে না।

‘জামায়াতের কোনো প্রার্থী নির্বাচন করতে পারবে না’

আওয়ার ইসলাম: একাদশ জাতীয় সংদস নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামীর চিহ্নিত নেতারা অংশগ্রহণ করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

একই সঙ্গে জামায়াতের কেউ স্বতন্ত্র প্রার্থী হতে চাইলে তার ব্যাপারেও বিচার-বিশ্লেষণ করে সিদ্ধান্ত দেবে কমিশন।

মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনের নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব বলেন তিনি।

তবে জামায়াতের কোনও প্রার্থীর নির্বাচনে অংশ নেয়ার ব্যাপারে ইসি কোনও আইন করবে কিনা সে বিষয়ে কিছু জানাননি নির্বাচন কমিশনার।

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ও সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন সুষ্ঠু না হওয়ার ব্যাপারে বিএনপি যে দাবি করছে তার জবাবে মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনাররা সংবিধান অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করার শপথ নিয়েছেন। সে শপথ নিয়ে এসে দায়িত্ব পালন করব না, বলব তা হয় না। সংবিধান অনুযায়ী সংবিধান সমুন্নত রেখে দায়িত্ব পালন করতে হবে।’