All posts by ourislam

বিশ্বের সবচেয়ে ধনী লেখক কে?

যারা লেখালেখি করেন তাদের মধ্যে সবচেয়ে উপার্জন বেশি কার? প্রশ্নটা কি কখনো করেছেন। হয়তো করেছেন কিন্তু তার উত্তর পাননি। ফোর্বস ম্যাগাজিন এর উত্তর বের করেছে।

পত্রিকাটি জানিয়েছে, বর্তমানে সবচেয়ে বেশি আয়ের লেখকের নাম জে কে রাউলিং। “হ্যারি পটার”-খ্যাত এই লেখক প্রতি মিনিটে আয় করেন ১৮০ ডলারের বেশি।

ফোর্বস ম্যাগাজিনের হিসেব মতে গত এক বছরে (চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত) রাউলিং আয় করেছেন ৯৫ মিলিয়ন ডলার। এই আয় এসেছে তাঁর বইয়ের প্রিন্ট, ই-বুক, অডিও, টেলিভিশন এবং চলচ্চিত্র সংস্করণ থেকে।

রাউলিংয়ের পরেই রয়েছেন “ওম্যান’স মার্ডার ক্লাব”-এর লেখক জেমস প্যাটারসন। একই সময়ে তিনি আয় করেছেন ৮৭ মিলিয়ন ডলার।

ম্যাগাজিনটির তালিকায় তৃতীয়স্থানে রয়েছেন “ডায়রি অব অ্যা উইম্পি কিড” এর জেফ কিনি। তাঁর আয় ২১ মিলিয়ন ডলার।

২০ মিলিয়ন ডলার আয় নিয়ে তালিকায় চতুর্থ অবস্থানে এসেছেন “দ্য ভিঞ্চি কোড”এর ড্যান ব্রাউন। পঞ্চম অবস্থানে “দ্য ডার্ক টাওয়ার”এর স্টেফেন কিং। তাঁর আয় ১৫ মিলিয়ন ডলার।

তালিকায় যৌথভাবে ষষ্ঠ হয়েছেন “দ্য ইনোসেন্ট ম্যান”এর লেখক জন গ্রিশাম এবং “ইয়ার ওয়ান”এর লেখক নোরা রবার্টস। তাঁরা পৃথকভাবে ১৪ মিলিয়ন ডলার করে আয় করেছেন।

সপ্তম অবস্থানের কথা উল্লেখ না করে ম্যাগাজিনটি বলেছে, ১৩ মিলিয়ন ডলার আয় নিয়ে “দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন”এর লেখক পলা হকিনস রয়েছেন অষ্টম অবস্থানে। আর নবম অবস্থানে রয়েছেন “ফিফটি শেডস অব গ্রে”এর ই এল জেমস।

যৌথভাবে দশম হয়েছেন “দ্য ডাচেস”এর ড্যানিয়েলি স্টিল এবং “বিগ রেড টেকুইল্যা” সিরিজের লেখক রিক রিওরড্যান। তাঁদের পৃথক আয় ১১ মিলিয়ন ডলার।

নিষিদ্ধ বইয়ের স্মৃতিস্তম্ভ

আগামী প্রজন্মের শিশুদের মূর্খ বানাতে পারে ফেসবুক-টুইটার

ব্রিটিশ এক লেখক মনে করছেন, ফেসবুক ও টুইটারসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের আধিপত্যের কারণে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের শিশুরা অশিক্ষিত হবে।

বুকার পুরস্কার বিজয়ী লেখক হাওয়ার্ড জ্যাকবসন এ আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, স্মার্টফোনের ব্যবহার এবং প্রচুর পরিমাণে ফেসবুক, টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের কারণে নাটকীয়ভাবে তরুণ প্রজন্মের যোগাযোগের পদ্ধতি বদলে যাচ্ছে। আর এসবের কারণে তারা হারাচ্ছে বই পড়ার অভ্যাসও। খবর দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের।

জ্যাকবসন জানান, শুধু তরুণ প্রজন্মই নয়, তিনি নিজেও বইয়ের প্রতি আর তেমন মনোযোগ দিতে পারেন না। কারণ তার মনোযোগের একটা বড় অংশও চলে যায় মোবাইল-কম্পিউটারের স্ক্রিনের পেছনে।

তিনি বলেন, ‘আমি আগে যে পরিমাণ বই পড়তে অভ্যস্ত ছিলাম এখন আর পড়তে পারি না। আমার মনোযোগ চলে যায় ইলেকট্রুনিক সব পর্দার দিকে। আমি সাদা কাগজ চাই, কাগজের ওপর আলো চাই।’ জ্যাকবসন বলেন, ‘আগামী ২০ বছরের মধ্যে আমরা এমন শিশুদের পাব যারা পড়তে পারবে না।’

এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, পশ্চিমা বিশ্বের শিক্ষার মান অনেক নেমে গেছে। ১৯৮২ সালের পর গত বছরই প্রাপ্ত বয়স্কদের মধ্যে সাহিত্য পড়ার হার সবচেয়ে কম। গবেষণায় বলা হয়েছে, গত বছর মাত্র ৪৩ শতাংশ মানুষ বছরে মাত্র একটি বই পাঠ করেছেন। শুধু তাই নয়, প্রতিদিনই বাড়ছে তরুণদের অনলাইনে কাটানো সময়ের হার। পাঁচ থেকে ১৫ বছর বয়সীরা প্রতি সপ্তাহে গড়ে ১৫ ঘণ্টা অনলাইনে কাটায়।

যুক্তরাষ্ট্রের এক গবেষণায় দেখা গেছে, বর্তমানে কিশোর বয়সীদের মধ্যে একাকিত্বের মাত্রা সবচেয়ে বেশি এবং ২০০৭ সালে আইফোন বাজারে আসার পর থেকে তাদের মানসিক স্বাস্থ্যেরও অবনতি ঘটেছে।

নিউজ ফিডে পরিবর্তন আনল ফেসবুক

প্রশ্নপত্রে বঙ্গবন্ধুর অবমাননা: ১৩ শিক্ষক কারাগারে

চট্টগ্রামে নবম শ্রেণির এক প্রশ্নপত্রে শেখ মুজিবকে অবমাননা করার এক মামলায় এলাকার ১৩ জন শিক্ষককে আদালত জেল হাজতে পাঠিয়ে দিয়েছে।

২০১৬ সালে দক্ষিণ চট্টগ্রামের মাধ্যমিক স্কুলের হাফ-ইয়ারলি পরীক্ষার জন্য তৈরি একটি প্রশ্নপত্রে বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবকে স্থানীয় একজন বিএনপি নেতার সাথে তুলনা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়।

সাথে সাথেই মূল প্রশ্নকর্তা গোকুল বড়ুয়া, যিনি স্থানীয় বঙ্গবন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক, এবং প্রশ্ন তৈরি কমিটির ১২ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। অবশ্য পরে তারা জামিন পেয়েছিলেন।

পরে চট্টগ্রামের একজন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিটি ঐ ১৩ জন শিক্ষককে অভিযুক্ত করেন।

চট্টগ্রামের বাঁশখালি থানার ওসি আলমগির হোসেন জানিয়েছেন, ঐ তদন্ত রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়ে পুলিশ ঐ ১৩ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা দায়ের করে।

অভিযুক্ত শিক্ষকরা আজ (বুধবার) আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে, আদালত তা খারিজ করে তাদের জেল হাজতে পাঠিয়ে দিয়েছে।

পুলিশের সূত্রে জানা গেছে, নবম শ্রেণীর ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়ে’র ওপর প্রশ্নপত্র নিয়ে অভিযোগের সূচনা।
বাঁশখালিতে একটি কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প নিয়ে সহিংসতা এবং ভাঙচুর ও প্রাণহানির প্রসঙ্গ তুলে ঐ প্রশ্নপত্রে বলা হয় ‘এল’ নামে একজন স্থানীয় চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে গ্রামবাসী আবার ঘুরে দাঁড়াতে সক্ষম হয়, যেমন ১৯৭১ সালে লণ্ডভণ্ড বাংলাদেশের মানুষ ঘুরে দাঁড়িয়েছিল। প্রশ্ন ছিল – ঐ এলের সাথে কোন নেতার তুলনা করা যায়?
ঘটনাক্রমে বাঁশখালি বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরুদ্ধে আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন স্থানীয় সাবেক একজন ইউপি চেয়ারম্যান, যিনি বিএনপির রাজনীতির সাথে যুক্ত।

এই সূত্রেই অভিযোগ করা হয়, প্রশ্নপত্রে একজন স্থানীয় রাজনীতিকের সাথে তুলনা করে শেখ মুজিবকে অবমাননা করা হয়েছে যা দেশদ্রোহের সামিল।

অভিযুক্তদের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি।

৭ খুন মামলার কৌঁসুলির মেয়েকে বিষ খাইয়ে হত্যার চেষ্টা

নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলা পরিচালনা করা নারায়ণগঞ্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ওয়াজেদ আলী খোকন টার্গেটে পরিণত হলেন। তার মেয়ে মাইশা ওয়াজেদ প্রাপ্তিকে (১৬) হত্যা ও অপহরণের চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

ওই সময়ে বিষ মেশানো কিছু ওই মেয়ের মুখে প্রবেশ করিয়ে অচেতন করে অপহরণের চেষ্টা চালায়। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের বিপরীতে হাজী মঞ্জিল ভিলার নিচ তলায় ওই ঘটনা ঘটে। এর আগে ২২ আগস্ট মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুন মামলায় নিম্ন আদালত প্রদত্ত মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ২৬ জনের মধ্যে ১১ জনের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন হাইকোর্ট। আর বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ডপ্রাপ্ত অপর ৯ জনের সাজা আগেরটিই বহাল আছে।

এর আগে গত ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালত ২৬ জনের মৃত্যুদণ্ড ও ৯ জনের মৃত্যুদণ্ড প্রদান করে। নারায়ণগঞ্জ আদালতের পিপি ছিলেন ওয়াজেদ আলী খোকন। পরিচালনা করতে গিয়ে কখনো আসামি পক্ষের চোখ রাঙানি, আসামি পক্ষের আইনজীবীদের রোষানলে পড়লেও শেষতক কড়াভাবেই আইনী লড়াই চালান ওয়াজেদ আলী খোকন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হাজী মঞ্জিলের চতুর্থ তলায় তৌহিদুল ইসলামের ‘ম্যাথ’ কোচিং সেন্টারে প্রাইভেট পড়াশোনা করে প্রাপ্তি। সে নারায়ণগঞ্জ এবিসি স্কুলের ও লেভেলের ছাত্রী। আর তৌহিদুল ইসলামও ওই স্কুলের শিক্ষক। এখানে বিকেল ৪টা হতে রাত ৮টা পর্যন্ত কোচিং পড়ানো হয়।

প্রতিদিনের মত বিকেল সাড়ে ৪টায় সে প্রাইভেট পড়ার জন্য আসে। বিকেল সোয়া ৬টায় কোচিং শেষে ভবন থেকে নিচে নামার সময়ে বঙ্গবন্ধু সড়কে একটি সাদা রঙয়ের ক্যারিনা গাড়িতে করে কয়েকজন যুবক এসে তার গতিরোধ করে। তখন তাকে বলে, তুমি কী ওয়াজেদ আলী খোকনের মেয়ে। প্রাপ্তি তখন হ্যাঁ জবাব দেয়। পরে ওই লোকজন বলে, তোমার বাবা তো একটা ভালো কাজ করেছে। সে ভালো আইনজীবী। সে ভালো কাজ করেছে। তাই তোমাকে মিষ্টি খাওয়াবো।

তখন প্রাপ্তি মিষ্টি খেতে অনীহা প্রকাশ করে। এক পর্যায়ে লোকজন একটি পলিথিনে থাকা বিষাক্ত কিছু জোর করে প্রাপ্তির মুখে ঢেলে দেয়। তখন সে কোনমতে ওই স্থান থেকে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করে। আশেপাশের লোকজন বিষয়টি দেখে ফেলায় দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এক পর্যায়ে প্রাপ্তি মুঠোফোনে বিষয়টি তার বাবা ওয়াজেদ আলী খোকনকে জানালে তিনি ঘটনাস্থলে যান। প্রথমে তাকে শহরের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার মঈনুল হক বলেন, ‘আমরা প্রত্যক্ষদর্শী ও পরিবার থেকে জেনেছি ৩ যুবক এসে প্রাপ্তিকে বিষাক্ত কিছু খাওয়ানোর চেষ্টা করেছে। বিষয়গুলো তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’

সাত খুনের মামলা পরিচালনার কারণেই কী এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সুপার বলেন, ‘পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে সাত খুনের মামলার কারণে মিষ্টি খাওয়ানোর নামে বিষ খাওয়ানেরা চেষ্টা করা হয়। তবে পুরো বিষয়গুলো আমরা তদন্ত করে দেখছি। তদন্তের আগে স্পষ্ট করেই বলা যাচ্ছে না।’

এদিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তার একেএম তারেক জানান, প্রাপ্তিকে বিষাক্ত কিছু খাওয়ানো হয়েছিল। সেটা ইতোমধ্যে ওয়াশ করা হয়েছে। এখন অবস্থা শংকামুক্ত।

সাত খুন মামলায় ১৫ জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল, শাস্তি কমলো ১১ জনের

‘ইরতেদাদ, কাদিয়ানী, তথ্য সন্ত্রাস’ বিষয়ক ব্যতিক্রমী সেমিনার কাল

হাওলাদার জহিরুল ইসলাম: মাওলানা হাসান মুহাম্মাদ জামিল৷ একজন কর্মব্যস্ত উদ্যমী আলেম৷ চিন্তক, গবেষক৷ বাংলাদেশের একজন শীর্ষস্থানীয় ওয়ায়েজ৷ যিনি রাজধানীর জামিয়া ইসলামবাগে প্রায় এক যুগ হাদিসের দরসের সাথে যুক্ত ছিলেন৷

গত ২০১১ সালে রাজধানীর সায়েন্সল্যাব এলাকায় নিজেই ‘দারুল উলুম রহমানিয়া’ নামে একটি অত্যাধুনিক মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করেছেন৷ যেখানে সমাজের উচ্চ শ্রেণির মানুষের সন্তানরাই বেশি৷ এতে খুব সহজেই উচ্চবিত্তদের কাছে দীনের আলো পৌঁছে দেয়া সম্ভব হচ্ছে৷ এছাড়াও তিনি সায়েন্সল্যাবস্থ ‘বাইতুল মা’মুর’ মসজিদে অত্যন্ত সুনামের সাথে দীর্ঘদিন ধরে খতিবের দায়িত্ব পালন করে আসছেন৷

সম্প্রতি তিনি কাদিয়ানি সম্প্রদায়ের অপতৎপরতা রোধে বেশ কিছু বুদ্ধিবৃত্তিক উদ্যোগ নিয়েছেন৷ যুগের চাহিদা অনুযায়ী মাঠের আন্দোলনের বিপরীতে মিডিয়া ভিত্তিক আন্দোলন গড় তুলতে কাজ করে যাচ্ছেন৷ ইতোমধ্যে তিনি Al-Huda নামে একটি পেইজও খুলে সেখানে কাদিয়ানিদের ভ্রান্ত মতবাদগুলোর ধারাবাহিক জবাব দিয়ে আসছেন৷ যা অল্প সময়ে শোস্যাল মিডিয়ায় ব্যপক সাড়া ফেলেছে৷

এদিকে আগামী কাল বাদ জোহর তার মাদরাসায় অনুষ্ঠিত হবে অত্যন্ত সময়োপযোগী একটি সেমিনার৷ যেখানে মূল আলোচ্য বিষয় থাকবে, ১৷ ইরতেদাদ বা ধর্মত্যাগ প্রসঙ্গ৷ ২৷ কাদিয়ানী মতবাদ প্রসঙ্গ৷ ৩৷ বিশ্বব্যাপী মিডিয়া সন্ত্রাস: করণী কী?

আনুষ্ঠান সূচিতে রয়েছে,  ১. বাদ যোহর [২.৩০] ইরতিদাদ ও ইস্তিশরাকের চ্যালেঞ্জ: আমাদের করণীয়
আলোচক: রেনেসাঁর কবি মূসা আল হাফিজ। ২. বাদ আসর: তথ্যসন্ত্রাস: আমাদের দায়িত্ব
আলোচক: মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ। ৩. বাদ মাগরিব: কুরআনের ব্যাখ্যায় কাদিয়ানীদের [আহমদীয়া মুসলিম জামাত] ভয়ঙ্কর বিকৃতি- আলোচক: প্রখ্যাত মুনাযির ও দায়ী মুফতি আব্দুল মজিদ।

হাসান মুহাম্মদ জামিল শুরু থেকেই তুলনামূলক তরুণদের নিয়ে কাজ করে আসছেন৷ এ প্রসঙ্গে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এরাই বেশি বিভ্রান্ত হয়৷ তরুণরাই আগামীর রাহবার, এরা শুদ্ধ হলে আগামী শুদ্ধ হবে৷’

আয়োজিত সেমিনারটি সবার জন্য উন্মুক্ত৷ যারা অংশগ্রহণ করতে চান তারা নিচের ঠিকানাটি নোট করে নিন৷

‘নিউ মার্কেট ও সাইন্সল্যাবরেটরী মোড়ের মাঝামাঝি; ৩২ মিরপুর রোড, ঢাকা টিচার্সট্রেনিং কলেজের বিপরিতে দারুল উলূম রাহমানিয়া মাদ্রাসা।’

বারিধারা জামিয়ায় রাজনীতি চর্চা, সময়ানুপাতে প্রশংসনীয় উদ্যোগ

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা ১ নভেম্বর; সূচি প্রকাশ

২০১৭ সালের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট-জেএসসি ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট-জেডিসি পরীক্ষা শুরু হবে আগামী ১ নভেম্বর।

বুধবার পরীক্ষার সময়সূচি ঘোষণা করা হয়েছে। সময়সূচি অনুযায়ী, ১ নভেম্বর শুরু হয়ে ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে পরীক্ষা। সকাল ১০টা থেকে এই পরীক্ষা শুরু হবে।

বোর্ডের ওয়েবসাইটে এ সময়সূচি পাওয়া যাবে।

এবার থেকে জেএসসির নিয়মিত শিক্ষার্থীদের শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা এবং চারু ও কারুকলা বিষয়ের পরীক্ষা হবে না। এই বিষয়গুলোর জন্য শিক্ষার্থীদের ধারাবাহিক মূল্যায়নের (শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানই করবে) মাধ্যমে প্রাপ্ত নম্বর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে সরবরাহ করতে বলা হয়েছে।

এরপর সংশ্লিষ্ট কেন্দ্র পরীক্ষা চলাকালীন বোর্ডের ওয়েবসাইটে অনলাইনের মাধ্যমে ধারাবাহিক মূল্যায়নের প্রাপ্ত নম্বর এন্ট্রি করে পাঠাবে। এই তিন বিষয়ের পরীক্ষা হবে অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের।

নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) অংশে ৩০ নম্বর এবং সৃজনশীল অংশে ৭০ নম্বরের পরীক্ষা হবে। তবে অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) অংশে ৪০ নম্বর এবং সৃজনশীল অংশে ৬০ নম্বরের পরীক্ষা হবে।

জেএসসি সূচি
১ নভেম্বর বাংলা প্রথমপত্র, ২ নভেম্বর বাংলা দ্বিতীয়পত্র, ৫ নভেম্বর ইংরেজি প্রথমপত্র, ৬ নভেম্বর ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র, ৭ নভেম্বর ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা, হিন্দুধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, বৌদ্ধধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা, খ্রিষ্টধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয়ের পরীক্ষা নির্ধারিত আছে।

৮ নভেম্বর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ৯ নভেম্বর বিজ্ঞান, ১১ নভেম্বর কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা (অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের জন্য), ১২ নভেম্বর গণিত, ১৩ নভেম্বর শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য (অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের জন্য), ১৪ নভেম্বর কৃষি শিক্ষা, গার্হস্থ্য বিজ্ঞান, আরবি, সংষ্কৃত, পালি, ১৬ নভেম্বর বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় এবং ১৮ নভেম্বর চারু ও কারুকলা (অনিয়মিত পরীক্ষার্থীদের জন্য প্রযোজ্য) বিষয়ের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

জেডিসি সূচি
১ নভেম্বর কুরআন মাজীদ ও তাজবিদ, ২ নভেম্বর আকাইদ ও ফিকহ, ৪ নভেম্বর আরবি প্রথম পত্র, ৫ নভেম্বর আরবি দ্বিতীয় পত্র, ৬ নভেম্বর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, ৭ নভেম্বর বাংলা প্রথম পত্র, ৮ নভেম্বর বাংলা দ্বিতীয়পত্রের পরীক্ষা হবে।

৯ নভেম্বর কৃষি শিক্ষা, গার্হস্থ্য অর্থনীতি, ১১ নভেম্বর গণিত, ১২ নভেম্বর কর্ম ও জীবনমুখী শিক্ষা, শারীরিক শিক্ষা ও স্বাস্থ্য, ১৩ নভেম্বর ইংরেজি প্রথমপত্র, ১৪ নভেম্বর ইংরেজি দ্বিতীয়পত্র, ১৬ বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় এবং ১৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে বিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষা।

অঝরে কাঁদলেন অনন্ত, জানালেন দ্বীনের পথে আসার কাহিনি

ভারতে কুরবানি উপলক্ষে জমিয়ত হিন্দের কয়েকটি পরামর্শ

মুনশি মুহাম্মাদ আবু দারদা, দেওবন্দ থেকে

জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সভাপতি শায়খুল ইসলাম মাওলানা সায়্যিদ আরশাদ মাদানী কুরবানি সামনে রেখে মুসলিমদের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে ভারতের মুসলমানদের করুণ অবস্থা চলছে৷ এ কারণে মুসলমানদের কুরবানির পশু জবেহ করার ক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন কাম্য৷

বিশেষ করে মুজাফ্ফরনগর এবং তার আশপাশের মুসলমানদের অবস্থা খুবই করুণ৷ তাই ওইসব এলাকার মুসলমানদের উদ্দেশে সতর্কতার জন্য সাদা পশু কুরবানি করতে নিষেধ করা হয়। এ ক্ষেত্রে কালো পশু জহেব করাই উত্তম।

মুসলিমদের পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, যদি কোন এলাকায় কোন ফেতনাবাজ, সন্ত্রাসী কালো পশুও কুরবানি করতে বাধা দেয় তাহলে যেন এলাকা মুরব্বি বা সম্মানিত ব্যক্তিদের সঙ্গে নিয়ে কুরবানি করা হয়।

এরপরও কোন এলাকায় কুরবানি করতে বাধা দেয়া হলে যে এলাকায় কুরবানি করতে কোন সমস্যা নেয় সেই এলাকায় গিয়ে কুরবানি করতে হবে।

তিনি বলেন, একান্তই গরু সমস্যা হলে ছাগল কুরবানি দিতে হবে আর সেটাও যদি না করতে দেয় তাহলে নিজের এলাকার থানায় রেজিস্ট্রি করে কুরবানি করতে হবে। যাতে পরবর্তীতে কোন সমস্যা না হয়৷

যিলহজের প্রথম দশক: ফজিলত ও করণীয়

৩১ আগস্ট পবিত্র হজ

সৌদি আরবের আকাশে মঙ্গলবার পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। তাই আগামী ৩১ আগস্ট বৃহস্পতিবার পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। পরদিন ১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সেখানে ঈদুল আজহা পালন করা হবে।

সৌদি আরবের সর্বোচ্চ বিচারিক আদালত চাঁদ দেখার বিষয়টি নিশ্চিত করে এই তারিখ ঘোষণা করেছে। ২৩ আগস্ট বুধবার থেকে সৌদি আরবে জিলহজ মাস শুরু হয়েছে।

৯ জিলহজ (৩১ আগস্ট) ফজরের নামাজের পর থেকে আরাফাতের ময়দানে সমবেত হতে থাকবেন বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আসা লাখ লাখা ধর্মপ্রাণ মুসলমান।

এরই মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মুসল্লিরা সৌদি আরব এসে পৌঁছাতে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত ১২ লাখ ৫৩ হাজার ৭ শত ৫৯ জন হাজি এসে পৌঁছালেও, নির্ধারিত সময়ের আগে আরো হাজির আগমণ ঘটবে বলে আশা করছে সৌদি সরকার।

সৌদি পাসপোর্ট অফিসের বরাত দিয়ে জানানো হয়েছে: গত বছরের তুলনায় এবছর দুই লাখ উনসত্তর হাজার একশত চৌদ্দজন বেশি হাজী হজ সম্পন্ন করবেন। যা গত বছরের তুলনায় ২৭ শতাংশ বেশি।

সৌদি আরবের পাশাপাশি সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইন্দোনেশিয়া, জর্ডান ও মালয়েশিয়ায় জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। এর আগে পাকিস্তান গত শনিবার ঘোষণা দেয়, ২ সেপ্টেম্বর ঈদুল আজহা হতে পারে।

যিলহজের প্রথম দশক: ফজিলত ও করণীয়

ঠিকাদারের অনিয়ম রুখতে ছদ্মবেশে ঘুরছেন পৌর মেয়র

আওয়ার ইসলাম: উন্নয়ন কাজ পর্যবেক্ষণ করতে ছদ্মবেশ ধরে ঘুরে ফিরছেন এক মেয়র। শেষ পর্যন্ত তার ছদ্মবেশের খবর প্রচার হয়ে গেছে।

চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকায় চলমান উন্নয়নকাজে ঠিকাদারের অনিয়ম রুখতে নির্মাণ শ্রমিকের ছদ্মবেশে ধরে কাজ দেখেন পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জিপু। তিনি গত কয়েকদিন ধরে পৌর এলাকার মহিলা কলেজপাড়া, হাজরাহাটি, বুজরুকগড়গড়িসহ কয়েকটি স্থানে চলমান উন্নয়নকাজ পর্যবেক্ষণ করেন।

এমন খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশের পর সাংবাদিকদের নজরে আসে বিষয়টি।

চুয়াডাঙ্গা পৌর সভা সূত্র জানায়, গত ২৫ জুলাই চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকায় ২৫ কোটি ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে কয়েকটি উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন করা হয়। তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নতিকরণ প্রকল্পের অর্থায়নে এ কাজের মধ্যে রয়েছে ১৪ দশমিক ৭৬ কিলোমিটার রাস্তা উন্নয়ন, ১৫ দশমিক ১৪ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ ও ১০৮টি সড়কবাতির পোল স্থাপন। ইতিপূর্বে একযোগে এত বড় কাজ চুয়াডাঙ্গা পৌরসভা করতে পারেনি।

একটি সূত্র জানায়, পৌরসভার এ উন্নয়নকাজে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার যাতে কোনো অনিয়ম করতে না পারে, সেজন্য কখনো নির্মাণ শ্রমিক কখনো রিকশা চালকের ছদ্মবেশে সম্প্রতি পর্যবেক্ষণে নামেন পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী। তিনি জরাজীর্ণ পোশাকে গামছা দিয়ে মুখ ঢেকে শ্রমিকদের সাথে কাজে যোগ দেন। ছদ্মবেশের বিষয়টি মঙ্গলবার প্রকৃত নির্মাণ শ্রমিকরা বুঝতে পারলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

এ বিষয়ে পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী জানান, ‘বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। প্রায়ই শোনা যায়, ঠিকাদারদের অনিয়মের কারণে সেসব কাজ যথাযথভাবে সম্পন্ন করা হয় না। আমার পৌর এলাকায় যাতে এ ধরণের অনিয়ম না হয়, সেজন্যই আমি নিজে ছদ্মবেশের আশ্রয় নিই।

কাতারে টুপির ডিজাইনে ফুটবল স্টেডিয়াম!

জিলহজ মাসের চাঁদ উঠেছে, ২ সেপ্টেম্বর ঈদ

বাংলাদেশের আকাশে আজ বুধবার সন্ধ্যায় পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। ফলে আগামী ২ সেপ্টেম্বর ঈদুল আযহা অনুষ্ঠিত হবে।

বুধবার জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি সূত্রে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে সৌদি আরবের আকাশে মঙ্গলবার পবিত্র জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। তাই আগামী ৩১ আগস্ট বৃহস্পতিবার পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। পরদিন ১ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) সেখানে ঈদুল আযহা পালন করা হবে।

সৌদি আরবের সর্বোচ্চ বিচারিক আদালত চাঁদ দেখার বিষয়টি নিশ্চিত করে এই তারিখ ঘোষণা করেছে। আজ ২৩ আগস্ট বুধবার থেকে সৌদি আরবে জিলহজ মাস শুরু হয়েছে।

সৌদি আরবের পাশাপাশি সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইন্দোনেশিয়া, জর্ডান ও মালয়েশিয়ায় জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেছে। এর আগে পাকিস্তান গত শনিবার ঘোষণা দেয়, ২ সেপ্টেম্বর ঈদুল আজহা হতে পারে।

সাধারণত সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে চাঁদ দেখার একদিন পর বাংলাদেশের আকাশে চাঁদ দেখা যায়। সেই হিসাবে আজ সন্ধ্যার পর বাংলাদেশে চাঁদ দেখা যাওয়ায় ২ সেপ্টেম্বর পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে।

যিলহজের প্রথম দশক: ফজিলত ও করণীয়