172846

ভোলায় মুসল্লিদের ওপর হামলার ঘটনায় খেলাফত যুব মজলিসের বিক্ষোভ

আওয়ার ইসলাম: বাংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিসের সভাপতি পরিষদ সদস্য মাওলানা আবুল হাসানাত জালালী বলেছেন, ভোলায় সর্বস্তরের তৌহিদি জনতার মিছিলে প্রশাসনের অতি উৎসাহী কিছু পুলিশ ঠান্ডা মাথায় নির্মম হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে। ২৪ ঘন্টার মধ্যে এদের খুঁজে বের করে দৃষ্টামূলক শাস্তি না দেয়া হলে এর পরিনতি শুভ হবেনা।

আজ বিকালে বাংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিস ঢাকা মহানগর কর্তৃক ভোলায় নবীপ্রেমিক জনতার উপর পুলিশি হামলা ও চারজন শহীদের হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে কটুক্তিকারী উগ্র সাম্প্রদায়িক হিন্দু “বিপ্লব চন্দ্র রায়কে” গ্রেপ্তার করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান।

তিনি আরো বলেন, নানা সময়ে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে কটুক্তিকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা না নেয়ার কারণে কিছু উগ্রবাদি হিন্দু মাঝেমধ্যেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট ও দেশকে অস্থিশীল করার জন্য নানা অপতৎপরতা পরিচালনা করে। রাসুলকে কটুক্তিকারি এসকল কুলাঙ্গারের বিরুদ্ধে মৃত্যুদন্ডের বিধান রেখে সংসদে আইন পাশ করতে হবে।

মহানগর সভাপতি মাওলানা রাকিবুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সহ সভাপতি মাও. জাহিদুজ্জামানের পরিচালনায় সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় সংগঠন বিভাগের সম্পাদক মাওলানা ফজলুর রহমান, সমাজকল্যাণ বিভাগের সম্পাদক মাও. শরীফ হুসাইন, খেলাফত ছাত্র মজলিসের সভাপতি পরিষদ সদস্য মুশাররফ হুসাইন প্রমুখ।

এর আগে, ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা সদরের ঈদগাহ মসজিদ চত্বরে পুলিশ-গ্রামবাসী সংঘর্ষে চার ব্যক্তি বুলেটবিদ্ধ হয়ে নিহত ও দেড় শতাধিক জন আহত হন। জানা গেছে, ফেসবুকের এক আইডি থেকে মহানবী স. কে ‘কটূক্তি’র জের ধরে রবিবার (২০ অক্টোবর) তৌহিদি জনতার ব্যানারে ডাকা বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ আগেভাগে শেষ করার নির্দেশ দেওয়ায় ঘটনাস্থলে পরে আসা গ্রামবাসীরা ক্ষুব্ধ হয়ে পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

আরএম/

ad

পাঠকের মতামত

Comments are closed.