২০১৯-০১-১২

রবিবার, ২০ জানুয়ারি ২০১৯

‘বক্তব্যের খণ্ডিত অংশ প্রচার করে আল্লামা শফীকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা হচ্ছে’

OURISLAM24.COM
news-image

ইকরামুল হক : ১১ জানুয়ারি আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারীর বার্ষিক সভা ও দস্তারবন্দী সম্মেলনে জামিয়ার প্রধান আল্লামা শাহ আহমদ শফীর বক্তব্য নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন মন্তব্য শোনা যাচ্ছে। চলছে বিতর্কও।

অনেকে মনে করছেন, প্রধান গণমাধ্যমগুলো এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করলেও পুরো বক্তব্য কেউ উপস্থাপন করেননি। যে কারণে একটি ক্ষুদ্র অংশ তুলে ধরায় এ নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে কথা হয় হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদীর সঙ্গে।

আওয়ার ইসলাম: হাটহাজারী মাদরাসার মাহফিলে আল্লামা শাহ আহমদ শফীর বক্তব্য নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকা ও যোগাযোগ মাধ্যমে আলোচনা হচ্ছে, তিনি মেয়েদের ক্লাস ফোর ফাইভ পর্যন্ত পড়াতে বলেছেন। বিষয়টি আসলে কী?

আজিজুল হক ইসলামাবাদী: গণমাধ্যম ও যোগাযোগ মাধ্যমের মন্তব্য অসম্পূর্ণ ও বিকৃত মন্তব্য। তারা কেউ আল্লামা আহমদ শফীর পুরো বক্তব্য তুলে ধরেনি। একটি খণ্ডিত অংশ প্রচার করে তাঁকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করছে।

আওয়ার ইসলাম: মূলত তিনি কী বলতে চেয়েছেন?

ইসলামাবাদী: স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে নারীদের পর্যাপ্ত সুরক্ষা ও পর্দার ব্যবস্থা না থাকায় তিনি মূলত সচেতনতা ও ধর্মীয় দিক বিবেচনাপূর্বক পড়াশোনা করানোর কথা বলেছেন। এটি কেউ তুলে ধরেননি।

আওয়ার ইসলাম: পঞ্চম শ্রেণির বেশি পড়াশোনা না করানোর প্রতি ইঙ্গিত কি সত্য? এ বিষয়ে আপনার কী মন্তব্য?

ইসলামাবাদী: পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত না পড়ানোর কথার পেছনে কিছু অভিব্যক্তি অবশ্যই আছে। তিনি মূলত স্কুলে বড়জোর চতুর্থ/পঞ্চম শ্রেণি পড়ানোর পর ধর্মীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করার গুরুত্ব দিয়েছেন।

আওয়ার ইসলাম: তিনি এমন কথা কেন বলেছেন?

ইসলামাবাদী: তিনি এদেশের ধার্মিকশ্রেণির সর্বজন শ্রদ্ধেয় মুরব্বি। তিনি ধর্মীয় দিক বিবেচনা করে এমন মন্তব্য করেছেন। সুতরাং তার দিক থেকে এটি যুক্তিযুক্ত।

আওয়ার ইসলাম: চতুর্থ/পঞ্চম শ্রেণি পড়ানোর পর উচ্চশিক্ষার প্রয়োজন আছে বলে অনেক আলেমেরও অভিমত।

ইসলামাবাদী: জ্বি অবশ্যই উচ্চশিক্ষার প্রয়াস থাকতে পারে। তিনি বুঝাতে চেয়েছেন, চতুর্থ/পঞ্চম শ্রেণি পড়ানোর পর ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনার করানোর ব্যবস্থা করা হোক।

সরকার তো দাওরায়ে হাদীসের সনদের মাস্টার্সের সমমান মান দিয়ে দিয়েছেন। সেখানে মেয়েরা পড়তে পারে। সেটাও উচ্চ শিক্ষা।

আওয়ার ইসলাম: তো স্কুল কলেজে পড়া থেকে দূরে রাখতে বলার কারণ কী?

ইসলামাবাদী: এ সময়ে আমরা দেখতে পাচ্ছি স্কুল কলেজে পড়াশোনার পর অধিকাংশ মেয়ে পর্দাহীনতা ও চরিত্রিকভাবে পিছিয়ে পড়ছেন। যা নিজের পরিবারও জানে না। এ কারণে তিনি আদর্শিক দিক চিন্তা করেই এমন মন্তব্য করেছেন।

আওয়ার ইসলাম: তার মন্তব্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যে মন্তব্য আসছে, সেটি নিয়ে আপনার মন্তব্য কী?

ইসলামাবাদী: তারা মূলত ইসলাম ও আলেম ওলামার দোষ অন্বেষণ করেন। এরা এমন একটি চক্র যারা সর্বদা আলেম ওলামার বিরুদ্ধাচরণ করে থাকেন।

যুগশ্রেষ্ঠ আলেম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর শানে যারা মন্তব্য করতে গিয়ে যারা বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য দেয় তাদের প্রতি আমি নিন্দা জানাই এবং হেদায়তের দো’আ করছি।

আওয়ার ইসলাম: তাদের জন্য আপনার কিছু বলার আছে?

ইসলামাবাদী: জ্বি, আমি তাদের প্রতি আহ্বান করবো, আপনারা হুজুরের মন্তব্যটা বুঝুন। তিনি কি বুঝাতে চেয়েছেন। তিনি কোন দিক থেকে কথাটা বলেছেন? আশা করি সমাজের অবস্থা বুঝতে পারলে সে ভুল ভেঙে যাবে।

আরআর