২০১৮-১২-০৬

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮

‘বাড়ি বাড়ি গিয়ে হামলা করছে সাদপন্থীরা’

OURISLAM24.COM
news-image

আবদুল্লাহ তামিম: সর্বস্তরের জনগণ ও ইজতেমার ময়দানে আহতদের পক্ষ থেকে ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটি হলে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বৃস্পতিবার বিকাল ৩টায় অনুষ্ঠিত এ সংবাদ সম্মেলনে আলেম উলামা ও টঙ্গী ময়দানে ১ ডিসেম্বর সাদপন্থীদের আক্রমণে আহত তাবলিগের সাথীরা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, তাবলিগের মুরব্বি মাওলানা আমানুল হক।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত শনিবার বিশ্ব ইজতেমায় কাজে রত সর্বস্তরের জনগণ, আলেম উলামা ও তাবলিগের সাথীদের উপর সাদপন্থীদের জুলুম নির্যাতনের শিকার আহতদের পক্ষ থেকে এ সংবাদ সম্মেলন।

১ ডিসেম্বর টঙ্গীর মাঠে ভারতের মাওলানা সাদ অনুসারী, বাংলাদেশের ওয়াসিফ গং ইট-পাটকেল দা-বটি রানদা রড নিয়ে আতর্কিত হামলা করে টঙ্গীর মাঠকে রক্তে রঞ্জিত করে বাংলাদেশ ও তাবলিগের ইতিহাসে এক কালো অধ্যায় সূচনা করে।

তিনি আরো বলেন, তারা যে ভীতিকর নির্মম হামলা চালিয়েছে তা যেভাবেই বর্ণনা করা হোক তার বাস্তবতা উপলব্ধি করা যাবে না। তাদের নিষ্ঠুরতার হাত থেকে রক্ষা পায়নি তাবলিগের সাথীরা।

এমনকি তাদের নির্মম নিষ্ঠুর আক্রমণ থেকে বাঁচতে আলেম উলামা ও তাবলিগের সাথীরা টয়লেটে গিয়েও রেহাই পায়নি। অনেকের বাড়ি গিয়েও তারা আক্রমণ করছে। এ পর্যন্ত পাঁচ সহস্রাধিক মুসল্লিকে তারা আহত করেছে।

রড দিয়ে কারো মাথা থেতলে দিয়েছে কারো হাত ভেঙ্গে দিয়েছে। কারো চোখ উপড়ে ফেলেছে, কারো চামড়া ছিলে ফেলেছে। ঢাকা গেন্ডারিয়া এলাকার হায়দার ভাই তাকে ইজতেমার ময়দানে আহত করার পর বাড়ি গিয়ে আবার তাদের উপর হামলা করে।

তিনি লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, আজ এ সাদপন্থীরা সংবাদ মাধ্যমে ফেসবুকে যতই অপপ্রচার চালানো হোক না কেনো তারা কাল কিয়ামতের ময়দানে এ নির্যাতনের বিচার থেকে রেহাই পাবে না।

তাদের নৃশংস হামলা থেকে ইজতেমার ময়দানের পাশে হিফজ মাদরাসার ছাত্রদের কুরআন পড়া অবস্থায় হামলা করে আহত করে। তাদের শিক্ষক মাওলানা ইমদাদ আমাদের সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত আছেন হুইল চেয়ারে আহত অবস্থায়। তাকেও নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে।

আমাদের এখানে আহতরা অনেকেই আসতে পারেনি। আজ তাদের নৃশংস হামলার এক সপ্তাহ পাড় হয়ে গেছে এখনো এ হামলার রহস্য ও চুপ থাকা আমাদের খুব আহত করেছে।

আজকে আমাদের বলতেই হয় পুলিশও তাদের মদত করেছিলো। আজও তাদের দৌরাত্ব থামেনি। আমরা সরকারের কাছে এর কারণ জানতে চাই। অবিলম্বে ওয়াসিফ গংদের গ্রেফতারের জোড় দাবি জানাই। দাবি জানাই ইতিহাসের বর্বর হামলার নীলনকশাকারী মূলহোতা ওয়াসিফ, নাসিফ ও আশরাফ আলী, আবদুল্লাহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের সহসভাপতি মাওলানা নুরুল ইসলাম, তাবলিগের মুরব্বি মাওলানা আমানুল হক, জামিয়া মোহাম্মদিয়া আরাবিয়ার মুহাদ্দিস মাওলানা ফয়সাল, মাওলানা জহির ইবনে মুসলিম, মাওলানা মুহিব্বুল্লাহসহ তাবলিগের আহত অনেক সাথি।