২০১৮-১২-০৬

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮

ঐক্যবদ্ধ সাভারের তাবলিগ সাথীরা, চাইলেন জিয়া বিন কাসেমের শাস্তি

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: তাবলিগের চলমান সমস্যা নিয়ে গতকাল সাভারের ওলামায়ে কেরাম ও তাবলিগের সাথীগণ ৫ ডিসেম্বর স্থানীয় এমপি ডা. এনামুর রহমানের সাথে বৈঠক করেন। এতে প্রায় দেড় হাজার উলামায়ে কেরাম ও তাবলীগী সাথী উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, দেশের অন্যান্য স্থানের মতো সাভারেও আছে তাবলিগ জামাতের বিতর্কিত মুরব্বি ভারতের মাওলানা  সাদের গুটিকয়েক  অনুসারী। সাভারে তাবলীগের বেশিরভাগ সাথী কাকরাইল মারকাজ ও ওলামায়ে কেরামের ওপর আস্থা রেখে তাদের নেতৃত্ব মেনে নিলেও তারা এ কাজে ভাঙন সৃষ্টি করছেন।

এর আগে স্থানীয় মারকাজে শবগুজারির জন্য তাবলিগের উভয় পক্ষকে সুযোগ দিতে এমপি ডা. এনামুর রহমান একদিন একদিন করে নির্ধারিত করে দিয়েছিলেন, তবে জনমানুষের সাড়া ছিলো কাকরাইল মারকাজের নেতৃত্বে শবগুজারির প্রতিই।

ভিন্ন ভিন্ন দিনে তাবলিগের উভয় পক্ষের আমল চলতো স্থানীয় মারকাযে। কিন্তু  টঙ্গী ইজতেমা ময়দানে হামলার পর স্থানীয় প্রশাসন উভয়পক্ষের শবগুজারি বন্ধের নির্দেশ দেন।

পরে ডা. এনামুর রহমানের সাথে ওলামায়ে কেরাম ও স্থানীয় তাবলীগের সাথীরা একটি বৈঠক করেন।

বৈঠকে তারা বলেন, আমাদের সাথে সাভারের তাবলীগের সব সাথী রয়েছেন। তারা শবগুজারি করতে চান কলমা মারকাক মসজিদে। সাভারে তাবলীগের সাথীদের মাঝে পরস্পর কোন বিরোধ নেই। মোটামুটি সবাই ওলামায়ে কেরামের পক্ষে।

বৈঠকের আলোচনায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করে ডা. এনামুর রহমান শুধুমাত্র ওলামায়ে কেরামকে শবগুজারির অনুমতি প্রদান করেন।

জানা যায়, ওই সময় উপস্থিত ওলামায়ে কেরাম মারকায ফিরে পাওয়ার পাশাপাশি  সাদপন্থী আলেম মাওলানা জিয়া বিন কাসেম, মুহাম্মাদ শাফিক, ইঞ্জিনিয়ার শফিক, প্রফেসর আরিফ, ডা. আব্দুল কুদ্দুস, ইঞ্জিনিয়ার সায়েম, মোহাম্মদ খালেদ, শামসুল আলমের শাস্তিও চেয়েছেন।

ওলামায়ে কেরামের অভিযোগ হলো, টঙ্গী ইজতেমা ময়দানে হামলার নেতৃত্ব দিয়েছেন এরা। কলমা মারকাজে শবগুজারির পর তাদের নেতৃত্বে কয়েকটি জামাত সেখানে গিয়ে হামলা চালিয়েছে।

তারা জিয়া বিন কাসেমসহ সবার বিরুদ্ধে আরো কিছু অভিযোগ এনে বলেন, ডা. এনাম, আপনি নিজেও তাবলীগের পুরনো সাথী। সবই আপনি জানেন। সমস্ত অপকর্মের মূলহোতাদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

ওলামায়ে কেরামের সাথে সহমত পোষণ করে প্রায় দেড় হাজার মুসল্লী একবাক্যে শ্লোগান দেন ‘খুনি জিয়ার শাস্তি চাই’।

এমপি ডা. এনামুর রহমান বলেন, আপনারা শুধু জিয়ার শাস্তি চাচ্ছেন কেন? সারা বাংলাদেশে এধরনের কাজের সাথে যারাই জড়িত সবাইকে শাস্তি দিবে সরকার।

এমপি আরো বলেন, আমি ওলামায়ে কেরামের পাশে ছিলাম এবং থাকবো। আপনাদের কথা বিবেচনা করে আমি আগামীকাল শবগুজারির অনুমতির ব্যবস্থা করেছি। তবে আপনারা খেয়াল রাখবেন যাতে কোন প্রকার অপ্রীতিকর অবস্থা তৈরি না হয়। আপনাদের সবাইকে এক দেখে আমার ভালো লাগছে।

ওলামায়ে কেরামের সাথে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা আব্দুল্লাহ, মাওলানা আলী আজম, মাওলানা আব্দুল মান্নান পাটোয়ারী, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাসউদুর রহমান, সাভার ইউনিওনের চেয়ারম্যান সোহেল রানা, মাওলানা খন্দকার কাউসার হুসাইন, মুফতি নাজমুল হাসান বিন নূরী, মাওলানা সুলতান মাহমুদ, মাওলানা আলি আকরাম, মাওলানা আলী আকবর কাসেমী, মাওলানা জুনাইদসহ সাভারের শীর্ষস্থানীয় ওলামায়ে কেরাম।

এইচএএম