২০১৮-১২-০৪

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮

শিক্ষামন্ত্রীর গাড়ি আটকে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ স্লোগান!

OURISLAM24.COM
news-image

আওয়ার ইসলাম: মোবাইলে নকল করার অভিযোগে অপমানিত হওয়ায় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যার ঘটনায় রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে চলছে ছাত্রীদের বিক্ষোভ।

ঘটনাস্থলে গিয়ে ছাত্রীদের তোপের মুখে পড়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ। মন্ত্রীর গাড়ি অবরোধ করে তারা স্লোগান দিলেন ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’!

শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদের মুখে এক পর্যায়ে মন্ত্রীও পিছু হটতে বাধ্য হন। শিক্ষার্থীদের স্লোগানের মুখে গাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন তিনি। এ সময় প্রায় ২০ মিনিট ধরে তাদের সঙ্গে কথা বলেন এবং এ ঘটনায় বিচারের আশ্বাস দেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে এই ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলেই দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মন্ত্রীর আশ্বাস পেয়ে পথ ছেড়ে দেয় শিক্ষার্থীরা।

বেলা সাড়ে ১১টায় ভিকারুননিসায় আসেন শিক্ষামন্ত্রী। এ সময় তিনি অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌসকে ঘটনার জন্য ভর্ৎসনা করেন। জানা গেছে, সকাল থেকেই ভিকারুন্নেসায় জড়ো হতে থাকে শিক্ষার্থীরা। তারা ঘটনার বিচারের দাবিতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে থাকে।

বেলা ১১টায় অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌস শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষককে এরই মধ্যে (সোমবার রাতে) সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে এবং ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, কমিটিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলেই দায়ীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে এখনো পর্যন্ত স্কুলের সামনে অবরোধ করে রেখেছে শিক্ষার্থীরা। তারা বলছেন, দোষীদের বহিস্কার না করা হলে তারা আন্দোলন করে যাবে। পরীক্ষা বর্জন করে তারা বিভিন্ন রকমের স্লোগান দিচ্ছে।

উল্লেখ্য, গতকাল সোমবার পরীক্ষায় খারাপ করায়, মোবাইল ফোন সঙ্গে রাখার অভিযোগে নবম শ্রেণির ‘ক’ শাখার ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীর সামনেই তার বাবাকে ডেকে অপমান করেন এক শিক্ষক। এই ঘটনায় অভিমান করে আত্মহত্যা করে অরিত্রি। নিহতের বাবার নাম দিলীপ অধিকারী। তার বাসা রাজধানীর শান্তিনগরে।