বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

ভ্যালেনটাইন্স ডে ও ক্লোজআপের কর্মসূচি বাতিল করতে হবে -বিভিন্ন ইসলামী নেতৃবৃন্দ

OURISLAM24.COM
ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮
news-image

আওয়ার ইসলাম: ভালোবাসা দিবস এবং এ উপলক্ষ্যে ইউনিলিভার বাংলাদেশের পৃষ্ঠপোষকতা ক্লোজআপ আয়োজিত কর্মসূচী ইসলাম, সংবিধান ও ডিএমপি অীর্ডন্যান্স বিরোধী, কাছে আসার রিকসা ক্যাম্পইনটি অশালীন অনৈতিক ও বাংলাদেশের আইন পরিপন্থি। এ ক্যাম্পইনের সিদ্ধান্ত নেয়ায় বাংলাদেশ ওলামালীগের লিগ্যাল নোটিশের প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট এ কর্মসূচি বন্ধ করার আদেশ দিয়েছে।

উল্লেখ্য ‘ভ্যালেন্টাইন’স ডে’র উৎস সম্পর্কে আরেকটি মতবাদ হচ্ছে, এর উৎস খ্রিস্টীয় ৩য় শতকে রোমক সম্রাট দ্বিতীয় ক্লডিয়াসের শাসনামলে? এ সময় ক্লডিয়াস একটি বিধান জারি করে যে, সেনাবাহিনীর সদস্যরা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে পারবে না। কেননা বিবাহ তাদের যুদ্ধক্ষেত্রে দৃঢ় থাকাকে ব্যাহত করবে? এ সময় সেইন্ট ভ্যালেন্টাইন এই আইনের বিরুদ্ধাচরণ করে এবং গোপনে সৈনিকদের বিয়ের কার্য সমাধা করতো? এর পরিণতিতে তাকে কারাবরণ করতে হয় এবং পরিশেষে সম্রাট তাকে খ্রিস্টধর্ম পরিত্যাগের বিনিময়ে মুক্তি ও পুরস্কারের লোভ দেখায় কিন্তু সে খ্রিস্টধর্মের উপর অটল থেকে মৃত্যুদণ্ড মাথা পেতে নেয়? তার প্রাণদণ্ড কার্যকরের তারিখটি ছিল খ্রিস্ট্রীয় ২৭০ শতকের ১৪ই ফেব্রুয়ারি। সেজন্য এই দিনটিকে ওই পাদ্রীর নামে নামকরণ করা হয়? খ্রিস্টানদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা পোপ ১৪ই ফেব্রুয়ারিকে ভালোবাসার উৎসব দিবস হিসেবে নির্ধারণ করে।এমতাবস্থায় বিভিন্ন ইসলামী নেতৃবৃন্দ ভালোবাসা দিবস ও এ সংক্রান্ত সকল কর্মসূচী বাতিল করার জন্য সরকারের প্রতি জোরদাবী করেছেন।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস
আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস মানে নারী ও পুরুষদের অশীøলতা বেহায়াপনা এবং নারী ও পুরুষে অবাধে চলাফেরার প্রতি উৎসাহিত করছে। মুসলমানদের ভালোবাস কোনো দিন ও তারিখের সঙ্গে সম্পৃত্ত নেই। বরং ইসলাম এক মুসলমান অপর মুসলমানের সঙ্গে প্রতিটি মুহূর্তে মহববত ও ভালো সম্পর্ক রাখার প্রতি তাগিদ দিয়েছে। সুতরাং কোনো মুসলমান ভ্যালেনটাইন্স দিবস পালন করতে পারে না। তিনি বলেন, এ ধরনের দিবস পালনের মাধ্যমে দেশের সুস্থ  ইসলামী সংস্কৃতিকে বিনষ্ট করা হচ্ছে সুতরাং আগামী প্রজন্মকে বাঁচাতে সরকারকে কার্যকরী ভূমিকা নেয়া এবং ভালোবাসা দিবস বন্ধ করা সময়ের দাবী। গতকাল বিকালে দলীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরীর নেতা কর্মীদের সঙ্গে এক মতবিনিময়ে দলের যুগ্ন-মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ এসব কথা বলেন। উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা কোরবান আলী কাসেমী, কেন্দ্রীয অফিস ও বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা এনামুল হক মূছা, সহ-সভাপতি মুফতি নূর মোহাম্মদ আজিজী, ছাত্র মজলিসের সাবেক সভাপতি মাওলানা আব্দুর রহীম সাঈদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক ঢালী, মাওলানা ফয়জুল্লাহ প্রমূখ।

আওয়ামী ওলামালীগ
ভ্যালেনটাইন্স ডে” উপলক্ষে ক্লোজআপ আয়োজিত “কাছে আসার রিকশা” ক্যাম্পেইন বন্ধ করার জন্য ইউনিলিভার বাংলাদেশকে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন আওয়ামী ওলামালীগ। লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়েছে, ক্লোজআপ আয়োজিত “কাছে আসার রিকশা” ক্যাম্পেইনটি অশালীন, অনৈতিক ও বাংলাদেশের আইন পরিপন্থী। এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক, অবাধ মেলামেশা, বেহায়াপনা ও অশালীনতাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। বিধির ২৯৪ ধারার বিধান অনুযায়ী, প্রকাশ্যে অশালীন কাজ করা নিষিদ্ধ। ডিএমপি অর্ডিন্যান্সের ৭৫ ধারায়ও প্রকাশ্য স্থান, রাস্তাঘাট ইত্যাদি জায়গায় অশালীন কাজ করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। নোটিশে আরও বলা হয়, সাংবিধানিকভাবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম। এই ধরনের অশালীন ও অনৈতিক কর্মকাণ্ড ইসলামের সম্পূর্ণ পরিপন্থী।