শনিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৮

কাল ঢাকায় আসছেন আল্লামা আহমদ শফী

OURISLAM24.COM
ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৮
news-image

আওয়ার ইসলাম: আগামীকাল রোববার ঢাকায় আসছেন হেফাজতের ইসলামের আমির, হাটহাজারী মাদরাসার মহা পরিচালক ও কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

১২ ফেব্রুয়ারি সোমবার বেফাকের কাউন্সিল উপলক্ষ্যে দীর্ঘদিন পর তিনি ঢাকায় আসছেন বলে আওয়ার ইসলামকে জানিয়েছেন বেফাকের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক।

আল্লামা আহমদ শফী গত বছর জুন মাসে সর্বশেষ চিকিৎসার জন্য ঢাকায় এসেছিলেন। রাজধানীর গেণ্ডারিয়ায় আজগর আলী  হাসপাতালে চিকিৎসার ভর্তি ছিলেন দীর্ঘদিন।

জানা গেছে, পরশু সোমবার ঢাকার জামিয়া ইমদাদিয়া ফরিদাবাদে কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। এখানে সারা দেশ থেকে হাজারও মাদরাসা শিক্ষক, উলামায়ে কেরাম উপস্থিত থাকবেন।

কাউন্সিলে সভাপতিত্ব করবেন বেফাকের চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমদ শফী। সভার নেতৃত্ব দিতে কালই তিনি ঢাকার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম থেকে রওনা দেবেন বলে জানা গেছে।

হাটহাজারী মাদরাসার সহকারী শিক্ষাসচিব মাওলানা আনাস মাদানী জানান, আল্লামা আহমদ শফী রোববার দুপুরের মধ্যে ঢাকায় পৌঁছবেন এবং চেকাপের জন্য আজগর আলী হাসপাতালে যাবেন। এরপর রাতেই ফরিদাবাদ মাদরাসার যাবেন।

সোমবারই হচ্ছে বেফাকের নির্ধারিত কাউন্সিল

আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি পূর্ব নির্ধারিত সময়েই কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড বেফাকের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে। এর আগে দেশের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক থাকায় নির্ধারিত সময়ে হবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়েছিল।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ফরিদাবাদ মাদরাসায় এক বৈঠকের বেফাকের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা আবদুল কুদ্দুস আওয়ার ইসলামকে জানান, কাউন্সিল পূর্ব ঘোষিত সময়েই হবে ইনশাল্লাহ।

তিনি বলেন, দেশের পরিস্থিতি ও যাতায়াতের ব্যবস্থা স্বাভাবিক রয়েছে। এ কারণে বৈঠকে উপস্থিত সদস্যগণ নির্ধারিত সময়ে কাউন্সিল করার ব্যাপারেই মত দেন।

বেফাকের নিসিয়র সহ সভাপতি আল্লামা আশরাফ আলীর সভাপতিত্বে আজ সকালে জামিয়া ইমদাদিয়া ফরিদাবদে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বেফাকের সহসভাপতি মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাস, মধুপুরের পীর মাওলানা আবদুল হামিদ, মুফতি ফয়জুল্লাহ, মাওলানা মুসলেহুদ্দীন রাজু, মাওলানা যোবায়ের আহমদ চৌধুরী, মাওলানা আবদুল কুদ্দুস, মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা নূরুল ইসলাম ও মাওলানা নুরুল আমিন প্রমুখ।

আরআর