বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮

প্রধানমন্ত্রী কাছে একজন তরুণ উদ্যোক্তার খোলা চিঠি

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ১৭, ২০১৮
news-image

আওয়ার ইসলাম: ভ্যাট ফাঁকি রোদে ২০১৫ সালে ‘ভ্যাট চেকার’ মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে জুবায়ের, তুর্য, নিশান নামের তিন তরুণ।

বাংলাদেশ সরকারের জাতীয় পুরস্কার সহ এশিয়ার সেরা আইট পুরস্কার জিতেছে এই অ্যাপ্লিকেশন।

এ বছর মার্চে ইউরোপের ভিয়েনায় আয়োজিত WSA Global Congress এ বিশ্বের ১৪৮ দেশের সামনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার কথা ছিলো অ্যাপ্লিকেশনটির।এর উদ্যোক্তাদের আমান্ত্রনও জানিয়েছে ওয়ার্ল্ড সামিট।

কিন্তু সম্প্রতি এই অ্যাপ্লিকেশনটি বন্ধ করে দেয়া হয়। অ্যাপ্লিকেশনটি পুনরায় চালু করার জন্য এর উদ্যোক্তা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে এক খোলা চিঠি পাঠিয়েছে।

আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যেমে এ তথ্য জানিয়েছেন অ্যাপটির উদ্যোক্ত জোবায়ের হোসেন। বিজ্ঞপ্তিতে পঠানো চিঠিটি হুবহু তলে ধরা হলো।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী

খুব কষ্ট নিয়ে আপনার কাছে খোলা চিঠি লিখছি। যে ডিজিটাল বাংলাদেশের ঘোষণা আপনি দিয়েছেন, সেই স্বপ্ন লালন করছি আমরা তরুণরা। একাগ্র চিত্তে কাজ করে চলেছি দেশের সমস্যা সমাধানে। একটি গল্প বলি আপনাকে। এ গল্প একজন উদ্যোক্তার মাঝপথে এক স্বপ্ন ভাঙ্গার গল্প।

রাজস্ব বাঁচানোর স্বপ্ন নিয়ে আমরা শুরু করেছিলাম ‘ভ্যাট চেকার’ নামে এক মোবাইল অ্যাপের যাত্রা। খুব অল্পদিনে হাজারো তরুণের চেষ্টায় VAT Checker এর মাধ্যমে চলতে থাকে ভ্যাট ফাঁকি ধরার অভিযান।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান স্যার আমাদেরকে সার্বক্ষণিক সহযোগিতা দেন, পাশে দাড়ান। তার অনুপ্রেরণা আর সহযোগিতায় লাখো মানুষ যুক্ত হয়েছিল ‘ভ্যাট চেকার’ এর সাথে। গত দেড় বছরে এই অ্যাপ বাঁচিয়ে দিয়েছে দেশের কয়েকশ কোটি টাকা। কিন্তু সম্প্রতি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ভ্যাট চেকারকে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,
এ বছর জাতীয় পুরষ্কার দেওয়া হয়েছে ‘ভ্যাট চেকার’ কে। এই উদ্যোগ ছিনিয়ে এনেছে দক্ষিন এশিয়ার সেরা আইটি সম্মাননা। ( mBillionth Award South ASIA) World Summit Award 2017 তে বাংলাদেশের সেরা উদ্যোগ হিসাবে মনোনয়ন পেয়েছিলো ভ্যাট চেকার।

এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের কাছ থেকে পুরস্কার নিচ্ছেন জুবায়ের

এ বছর মার্চে ইউরোপের ভিয়েনায় আয়োজিত WSA Global Congress এ বিশ্বের ১৪৮ দেশের সামনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার কথা ছিলো আমাদের। আমান্ত্রন জানিয়েছে ওয়ার্ল্ড সামিট।

আমরা আসলেই জানি না কি জবাব দিবো ভিয়েনাতে গিয়ে। দুই বছর ধরে রাজস্ব বাঁচাতে বিনা স্বার্থে যে অ্যাপ দেশকে সহযোগীতা করেছে সেটা বন্ধ করে দেওয়া হলো। হয়তো মাননীয় চেয়ারম্যান মহোদয়ের পদ পরিবর্তন না হলে এমনটা হতো না।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,
আপনার নিকট আমার অনুরোধ, আপনার নিজ হস্তক্ষেপে ‘ভ্যাট চেকারকে’ পুনরায় সচল করে জাতীয়করণ করে নেন। আমি সত্যিই ভিয়েনাতে গিয়ে বলতে পারবো না পদ পরিবর্তন হলে স্বপ্নগুলোও ভেঙ্গে যায় আমাদের দেশে। আমার ভুল হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

ইতি,
মোঃ জুবায়ের হোসেন
একজন তরুণ উদ্যোক্তা।

এসএস/