বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

দেশে দস্যুতা, সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ চলবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ১৬, ২০১৮
news-image

ডেস্ক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‘দেশের নিরাপত্তা বাহিনী অত্যন্ত শক্তিশালী, সুশৃঙ্খল।’ তিনি আরো বলেন, ‘কেউ দস্যুতা করবেন আর আমরা বসে থাকব সেই দিন আর নেই। বাংলাদেশে কোনো দস্যুতা, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ চলবে না।’

আজ মঙ্গলবার বরিশালে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন- (র‍্যাব) ৮ এর সদর দপ্তরে সুন্দরবনের তিন দস্যু বাহিনীর সদস্যদের আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সুন্দরবনের তিন দস্যুবাহিনীর মোট ৩৮ জন সদস্য আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদসহ আত্মসমর্পণ করে। র‌্যাব- ৮ এর সদর দপ্তর কমপ্লেক্সে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের হাতে অস্ত্র তুলে আত্মসমর্পণ করে তারা।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যারা নিজেদের ভুল বুঝে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চাইছেন আমরা যেমন তাদেরকে স্বাগত জানাচ্ছি তেমনি যারা এখনো ভুল পথে আছেন তাদেরকে হুঁশিয়ার করে দিচ্ছি যে, দস্যুতা করবেন, মানুষের জান মাল ধ্বংস করবেন আর আমরা বসে থাকবো তা হবে না। প্রয়োজনে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যারা আত্মসমর্পণ করছে তাদেরকে অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে যাতে তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারে। তাছাড়া হত্যা এবং নারী নির্যাতন ব্যাতিত তাদের বিরুদ্ধে অন্যান্য যেসব অভিযোগ আছে সেগুলোর ব্যাপারেও সহানুভূতিশীল ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘আইন শৃংখলা বাহিনীসহ বিভিন্ন বাহিনীর সঠিক দায়িত্বপালনের কারনে আজ সুন্দরবন এবং বঙ্গোপসাগরসহ পুরো উপকুলীয় এলাকা অনেকটাই নিরাপদ। যারা এইসব দস্যু বাহিনীকে নিজেদের প্রয়োজনে ব্যবহার করছেন কিংবা ফায়দা নিচ্ছেন তাদেরকেও রেহাই দেওয়া হবেনা।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমি সব সময় বলি আমাদের পুলিশ কিন্তু সেই আগের পুলিশ নেই। এটা জননেত্রী শেখ হাসিনার পুলিশ এরা। শুধু পেশাদারিত্ব নয়, এরা দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ। যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় প্রস্তুত।’ তিনি আরো বলেন, ‘উপকূলীয় এলাকাকে যেভাবে পারি আমরা সুরক্ষা করব। দস্যুতা, কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা আমরা এখানে হতে দিব না।’

র‌্যাব- ৮ এর কর্মকর্তারা জানান, আত্মসমর্পণ করা ৩৮ জন সুন্দরবনের বড় ভাই, ভাই ভাই এবং সুমন বাহিনীর সক্রিয় সদস্য। আত্মসমর্পণের সময় দস্যুরা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ৩৮টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ২ হাজার ৯৬৯ রাউন্ড গোলাবারুদ জমা দেয়।

র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক উইং কমান্ডার হাসান ইমর আল রাজীবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন র‍্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য জেবুন্নেসা আফরোজ, বরিশাল রেঞ্জ পুলিশের উপ মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) শফিকুল ইসলাম এবং পুলিশ কমিশনার রুহুল আমিনসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। খবর এনটিভি অনলাইন।

এসএস/