সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭

ads

মাদরাসা শিক্ষার্থীরাই একদিন দেশের নেতৃত্ব দিবে: এম এম বাহাউদ্দীন

OURISLAM24.COM
ডিসেম্বর ৮, ২০১৭
news-image

আওয়ার ইসলাম ডেস্ক: ছাত্রছাত্রীদের আগামীর সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে দেশের মাদরাসাগুলোর ক্লাসে আদর্শ-নৈতিকতার শিক্ষার প্রাধান্য দেয়া হয়। এ বাস্তবতা বুঝে বাবা-মায়েরা তাদের সন্তানদের মাদরাসার পাঠানো বাড়িয়ে দিয়েছেন। মাদরাসাগুলোয় শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এভাবে চলতে থাকলে মাদরাসার শিক্ষিতরাই একদিন দেশের নেতৃত্ব দেবেন।

গতকাল জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের রাজশাহী বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দীন এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, একদিন বাংলাদেশ হবে ইসলামি রাষ্ট্র। দেশের নেতৃত্ব দিবে মাদরাসা শিক্ষিতরা। এ জন্য আলেম-ওলামাদের আরো বেশি করে অধ্যায়ন ও গবেষণা করতে হবে; জ্ঞানার্জনে ব্যাপক পড়াশোনা করতে হবে। কেননা, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষিতরা প্রচার করেন, মাদসারার ছাত্রছাত্রীরা দেশের শিক্ষাব্যবস্থা, রাষ্ট্রনীতি, অর্থনীতি সম্পর্কে জানেন না। মেধা চর্চার মাধ্যমে এই অপপ্রচারের জবাব দিতে হবে।

গতকাল জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের রাজশাহী বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, মাদকের ভয়াল থাবায় ক্ষতবিক্ষত দেশ। দেশব্যাপী ভয়ঙ্করভাবে বিস্তার লাভ করেছে মাদক। সবচেয়ে উদ্বেগের বিষয় হলো নামকরা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিক্যাল কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জেঁকে বসেছে ইয়াবা সিন্ডিকেট। ছাত্র-শিক্ষকরাই এর বিক্রেতা এবং খরিদদার।

সম্প্রতি সরকারি গোয়েন্দা প্রতিবেদনে যা সুন্দরভাবে প্রকাশ করা হয়েছে। যেখানে শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নাম সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে এটি একটি খন্ডচিত্র। যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সরকার কোটি কোটি টাকা খরচ করছে, সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের এই হাল! তারা কিভাবে উন্নত নৈতিক চরিত্রের মানুষ তৈরি করবে? শিক্ষালয়ে এভাবেই নতুন প্রজন্ম ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।

অন্যদিকে মাদরাসা শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গাঁজা-ইয়াবা খায় এমন নজির নেই। প্রতিবেদনে কোনো মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নাম নেই। কারণ একটাই মাদরাসাগুলোয় নৈতিক শিক্ষায় বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়।

সরকার টাকা খরচ করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে যে কাজটা করতে পারে না; মাদরাসার শিক্ষক, আলেম-ওলামারা সেটা ফ্রিভাবে শিক্ষা দিচ্ছে। মাদরাসায় জঙ্গিবাদ ও ইয়াবা সিন্ডিকেট নেই এমন কথা প্রায়শই বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী।

তারা সঠিক কথাই বলে থাকেন। এটা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। এমন সুনামের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। মাদক ও জঙ্গিবাদের ভয়াল থাবা থেকে জাতিকে বাঁচাতে হলে আলেমসমাজ তথা মাদরাসা শিক্ষকদের অগ্রণী ভুমিকা রাখতে হবে। সুত্র: ইনকিলাব।

এসএস/

এ জাতীয় আরও খবর