শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৭

ads

হাসপাতাল থেকে মাদরাসায় ফিরলেন মাওলানা আবু তাহের রাহমানী

OURISLAM24.COM
অক্টোবর ২১, ২০১৭
news-image

আওয়ার ইসলাম: চারদিন সিসিইউতে থাকার পর কিছুটা সুস্থ হয়ে শনিবার সন্ধ্যা ছয়টায় হাসপাতাল থেকে মাদরাসায় ফিরেছেন বহুমুখী প্রতিভাধর আলেম মাওলানা আবু তাহের রাহমানী৷

তিনি রাজধানীর বাসাবোতে অবস্থিত মাদরাসাতুস সুফফা আল-ইসলামিয়া’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ৷ হাসপাতাল থেকে সরাসরি বাসাবোতে যান তিনি৷

শনিবার সন্ধ্যায় হাসপাতালে তাকে দেখতে আসেন বিশিষ্ট লেখক-সাহিত্যিক ও মালিবাগ মাদরাসার মুহাদ্দীস মাওলানা নাসিম আরাফাত৷ এরপর দেখতে আসেন মাদরাতুল মদীনার সাবেক শিক্ষক মাওলানা আশরাফ হালিমী৷

এর আগে গত মঙ্গলবার হৃদরোগ জনিত সমস্যা থেকে বুকে ব্যথা অনুভব করলে প্রথমে নোয়াখালীর একটি হাসপাতালে নেয়া হয়৷ অবস্থার উন্নতি না হলে পরবর্তীতে রাজধানীর শাহবাগের ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে সিসিইউতে রেখে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়৷

পরিবারের সদস্যরা জানান, হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে তার অবস্থার উন্নতি হতে থাকে৷ শনিবার দুপুরে তার চিকিৎসক ইব্রাহিম কার্ডিয়াকের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. সাইদুর রহমান জানান, রোগীকে এখন বাসায় নিয়ে যেতে পারেন৷ রোগীর অবস্থা মোটামুটি স্বাভাবিক আছে৷ তবে অল্প সময়ের মধ্যেই পরবর্তী চিকিৎসা ওপেনহার্ট সার্জারি করাতে হবে৷

শনিবার সন্ধ্যায় হাসপাতাল থেকে মাদরাসায় ফেরার সময় ইব্রাহিম কার্ডিয়াকে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা নাসিম আরাফাত, মাওলানা আশরাফ হালিমী, হযরতের ছোট ভাই উত্তরার মাদরাসাতুল হিকমার প্রিন্সিপাল মাওলানা আবু সালেহ রাহমানীসহ পরিবারের একাধিক সদস্য৷ এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন হযরতের একান্ত ঘনিষ্ট শিষ্য আনাস বিন ইউসুফ ৷

হাসপাতাল ছাড়ার সময় হযরতের ছোট ভাই মাওলানা যোবায়ের রাহমানী আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ৷

তিনি বলেন, বড় ভাইকে আল্লাহ তা’য়ালা অল্প সময়ে সুস্থতা দান করেছেন৷ এতে পরিবারের সদস্যরা আনন্দিত৷ আমরা আল্লার অগনন শুকরিয়া আদায় করছি, আলহামদু লিল্লাহ৷

শিক্ষার্থী আনাস বিন ইউসুফ জানান, হুজুরের ছাত্র, ভক্ত ও শুভানুধ্যায়ীগণ অসুস্থতাকালীন সময়ে সার্বক্ষণিক হুজুরের খোঁজ রেখেছন৷ প্রাণ খুলে হুজুরের জন্য দোয়া করেছেন৷ আমি সবাইকে ধন্যবাদ জানাই৷ হুজুরের সুস্থতায় আমরা আনন্দিত৷

মাওলানা আবু তাহের রাহমানী মাদরাসাতুস সুফফার পাশাপাশি রামপুরার জামিয়া কারিমিয়ায় মুসলিম শরিফের পাঠদান করছেন৷ এর আগে তিনি মাদরাসাতুল মদিনা কামরাঙ্গীরচর এবং রামপুরার মাদরাসাতুল কাউসারে শিক্ষকতা করেন। নারায়ণগঞ্জের দেওভোগ মাদরাসায় বুখারী শরিফের পাঠদান করেছেন বেশ কিছুদিন ।

শিক্ষকতা ও খতিবীসহ গ্রন্থ রচনায়ও রয়েছে তার সরব প্রদার্পণ। লিখেছেন ‘তোহফাতুল মুসলিমিন’ ‘শরিয়তের দৃষ্টিতে পারিবারিক জীবন’ এবং ‘দীন ও শরিায়ত’সহ একাধিক বই ।

মাওলানা আবু তাহের রহমানী লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন । মেধাবী ও প্রতিভাবান এ আলেম পড়াশোনা করেছেন ঢাকার কামরাঙ্গির চরের জামিয়া নুরিয়া মাদরাসায়।

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে মাওলানা আবু তাহের রাহমানী