বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০১৭

মেয়র আইভি! নতুন করে ইতিহাস চর্চা করুন

OURISLAM24.COM
জানুয়ারি ১, ২০১৭
news-image

মাওলানা মাহমুদুল হাসান সিরাজী

iv_rahmanমেয়র আইভি! আপনি একজন জনপ্রতিনিধি। আপনি একজন সমাজ প্রতিনিধি। জালিয়াতি নয় বরং ফেয়ার নির্বাচনের মাধ্যমেই নির্বাচিত হয়েছেন আপনি।আপনার এলাকায় আপনার জনপ্রিয়তা রয়েছে। আপনাকে মানুষ মন্দের ভাল হিসাবে বেছে নিয়েছে। আপনাকে একজন পরিশ্রমী মানুষ হিসেবে গ্রহণ করেছে।

নির্বাচনের সময় আপনি নারী না পুরুষ এটা কেউ দেখেনি। একজন নারী হিসেবে আপনি নির্বাচিত হননি। আপনাকে যারা ভোট দিয়েছে তাদের ৬০ ভাগই পুরুষ। নারী পুরুষের লড়াই হলে আপনি টিকে থাকতে পারতেন কি না একটু চিন্তা করে দেখুন। নারী নারী করতে করতে আপনারা যেভাবে মুখে ফেনা তুলে ফেলেন, পুরুষরা আপনাদের মত এভাবে পুরুষ পুরুষ করলে সামাজিক ভারসাম্যতা ঠিক থাকতো কি না একটু ভেবে দেখুন। আপনি নাররায়ণগঞ্জবাসী সবার মেয়র। নারী পুরুষ কারোর নয়।

সুতরাং বিজয়ের পরে আপনার বিজয়কে একক নারীর বিজয় বলে সমাজে সংকীর্ণতা সৃষ্টি করার অর্থ হয় না। নারী পুরুষ উভয়ের সমন্ময়েই একটি পরিবার। আর কতগুলো পরিবারকে কেন্দ্র করেই গড়ে উঠে একটি সমাজ। পরিবার ও সমাজে নারী- পুরুষ কারোর চেয়ে কারো ভূমিকা কম নয়।

কিন্তু আপনার মত একজন জনপ্রিয় জনপ্রতিনিধি, যিনি আবার সরাসরি জনগণের সমর্থনে ও ভোটে নির্বাচিত আপনি কিভাবে কওমি মাদরাসা আর মহিলা মাদরাসা নিয়ে সঠিক তথ্যহীন কথা-বার্তা বলেন এটা বুঝে আসছে না। এমন বক্তব্য নির্বাচনের আগে দেওয়ার সাহস করেননি কেন? সমাজ ও সংস্কৃতি বিধ্বংশী এক শ্রেণির সংকীর্ণমনা মিডিয়াকর্মী কেন নির্বাচনের আগে আপনাকে টকশোতে ডাকার সাহস করেনি? আপনি দেখতেন, নারায়নগনঞ্জবাসী কওমি মাদরাসা সম্পর্কে জানে কি না? আপনি বুঝতে পারতেন মহিলা মাদরাসাগুলোতে দীন শিক্ষার নামে কি হচ্ছে আপনার এলাকাবাসীর অবগত আছে কি না?

কওমি ও মহিলা মাদরাসায় নজরদারি বাড়াতে বললেন আইভি

টকশোতে আপনি মন্তব্য করলেন এরা বিদেশি কোন একটি এজেন্সীর হয়ে কিছু করছে কি না এটা দেখতে হবে। হ্যাঁ, আপনি জেনে নিন, ভারত উপমহাদেশের সকল দীনি মাদরাসা বিদেশের বিষেশ একটা জায়গার বিশেষ কিছু এজেন্ডা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। আর ঐ বিশেষ জায়গার বিশেষ এজেন্ডার সনদ বাস্তবায়ন করার জন্য আপনার নেত্রী কিন্তু সব সময়ই চেষ্টা করে যাচ্ছে।

আর বিদেশের নামে ঐ জায়গাটা হল ‘মদীনায়ে মুনাওয়ারা’। যেখানে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠমানব হজরত মোহাম্মদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম শায়িত আছেন।

বর্তমানে কওমিমাদরাসাগুলো মদীনার এজেন্ডাই বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। আর মদীনার এজেন্ডাগুলো দিয়ে সমাজ কি তৈরি হয় এটা জানতে আপনাকে ১৪শ’ বছরের ইতিহাস জানতে হবে।

একজন রাজনীতিবীদ ইতিহাসের উপর অনেক অভিজ্ঞ হওয়া উচিৎ ছিল। কিন্তু আপনি দেখছি ইতিহাসে খুব দুর্বল। সমাজবিজ্ঞানে আপনার যতটুকু দক্ষতা থাকার দরকার ছিল তাও অপূর্ণ রয়েছে।

সমাজে সন্ত্রাসী বৃদ্ধি পাচ্ছে, সমাজে কেন চুরি বৃদ্ধি পাচ্ছে, নারীরা কেন ধর্ষিতা হচ্ছেন, কেন ইভটিজিংয়ের সম্মোখীন হচ্ছেন, আপনাদের সন্তানগুলো কেন আউট অফ কন্ট্রোল হয়ে যাচ্ছে, এরা কেন মাদকে জড়িয়ে যাচ্ছে, এরা কেন নেশায় ডুবে থাকছে এগুলো আপনার খুঁজে খুঁজে বের করা প্রয়োজন ছিল। সামাজিক এ সমস্যাগুলোর সমাধান বের করে একটা সুন্দর সমাজ উপহার দেওয়া জরুরি ছিল।

আপনার নারায়নগনঞ্জ আজ মাদকের স্বর্গরাজ্য। আপনার নারায়নগনঞ্জ আজ সন্ত্রাসের আড্ডাখানা হিসাবে খ্যাত। এরা কোন কওমি মাদরাসা থেকে লেখাপড়া শেষ করেছে? আপনি ইচ্ছা করলে যে কোন মুহূর্তে যে কোন কওমি মাদরাসায় তল্লাশী চালাতে পারেন। আশা করি আপত্তিকর কিছুই পাবেন না। কিন্তু আজ ভার্সিটির আবাসিক হলগুলোকে একবার তল্লাশীর আওতায় এনে দেখুন।

সন্ত্রাসবাদসহ সামাজিক বিভিন্ন অপকর্মগুলোতে কয়জন কওমির ছাত্রী খু্ঁজে পাবেন আর কয়জন কলেজ ভার্সিটির পড়ুয়াদের খু্জে পাবেন একবার চিন্তা করে দেখুন।

এদেশের কওমি মাদরাসাগুলো যতটা জনসম্মোখে পরিচালিত হয় এবং এগুলো পরিচালনার সাথে জনসম্পৃক্ততা রয়েছে এর শিকিভাগও স্কুল কলেজগুলোর পরিচালনার সাথে জনসম্পৃক্ততা নেই।

মাননীয় মেয়র! তোতা পাখির মত শেখানো কথাগুলো উচ্চারণ করবেন না। চারপাশ ভালো করে দেখে মন্তব্য করার চেষ্টা করুন। এতে আপনার ও জনগণ সকলের জন্যই কল্যাণকর। আপনারা আবেগী হলে চলবে না। আপনাদের আবেগ নিয়ন্ত্রন করে বিবেক দিয়ে পথ চলতে হবে। আবেগ দিয়ে প্রেম ভালবাসা চলতে পারে। কিন্তু প্রসাশনতো দূরের কথা একটা পরিবারও চলতে পারে না।

আপনার কল্যাণকামী হিসাবেই কথাগুলো লিখলাম। আপনার চোখ পর্যন্ত কখনো গেলে একটু ভেবে দেখার চেষ্টা করবেন। এককাপ চা পানেরও দাবি থাকবে না। একান্ত জনসার্থেনএকথাগুলো লেখা।

পৃথিবীর কোন ধর্মই উগ্র নয়। ধর্মে উগ্রবাদের কোন স্থান নেই। ইসলাম ধর্মেতো থাকার কথাই নেই। আর সন্ত্রাসবাদের জন্ম কিন্তু এ উগ্রবাদ থেকেই। সুতরাং উগ্রতার যেমন স্থান নেই সন্ত্রাসবাদেরও কোন স্থান ইসলামে নেই। আপনাকে বলছি, ধর্মে- কর্মে আরেকটু মনযোগী হোন। ধর্ম আপনাকে আরো সহনশীন করে তুলবে। অন্তত আপনার নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসীনার মত হলেও হওয়ার চেষ্টা করুন। তিনি একজন পুরোদস্তর ধর্মে-কর্মে বিশ্বাসী ও আমমি। রাজনীতিতে যেহেতু তার আদর্শে বিশ্বাসী, ধর্মেও তার অনুস্বরণ করার চেষ্টা করুন। এতে আরো এগিয়ে যেতে পারবেন বলে আশা করি।

লেখক: প্রিন্সিপাল, মাদরাসা উসমান ইবনে আফফান রা. যাত্রাবাড়ী ঢাকা

আরআর