বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭

ads

সেরা পাঁচ সিরাতগ্রন্থ

OURISLAM24.COM
ডিসেম্বর ১২, ২০১৬
news-image

۞  আমিন আশরাফ

book_siratরাসুলে আকরাম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সারা পৃথিবীর জন্য উত্তম আদর্শ। তাঁকে দিয়েই দীনে ইসলামকে পরিপূর্ণতা দেওয়া হয়েছে। তার চরিত্র মাধুরী হলো কুরআনুল কারীম। তিনিই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সাহিত্যিক। তিনিই সর্ব উত্তম দয়ার সাগর। তাকেই বলা হয়েছে- কানা আহসানান নাস। তিনিই পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দরতম সুপুরুষ। তিনিই কানা আজওয়াদান নাস। তিনিই সর্বত্তোম দানশীল। তিনিই অন্য এক পৃথিবী। তার জীবন ও চরিত্র মানবজাতির জন্য মুক্তির এক আলোকজ্বল ফোয়ারা। তাঁর সিরাত পৃথিবীবাসীর এক অনুকরণীয় বস্তু। তাঁকে নিয়ে লিখে জগতে ধন্য হাজারো লেখক সাহিত্যিক ও ঐতিহাসিক। তাঁর জীবন কাহিনী বলে বুজর্গ হয়েছেন পৃথিবীর অনন্য রাহবার। তিনিই পৃথিবীর সেরা নবী, তিনিই সর্বশ্রেষ্ট রাসুল।

তারপর আর কোনো নবী নেই। তাঁর সম্পর্কে বলে, লিখে অনুভব করে, হৃদয়ে ধারণ করে শেষ করতে পারেনি কেউ, কিয়ামত অবধি কেউ পারবেও না। রবিউল আওয়াল মাসে তাঁকে নিয়ে রচিত সেরা পাঁচটি গ্রন্থের আলোচনা তুলে ধরা হলো।

 

বিশ্বনবী

লেখক: গোলাম মোস্তফা

প্রকাশক: আহমদ পাবলিশিং হাউজ

সিরাতুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে নিয়ে লিখিত ‘বিশ্বনবী’ও একটি অনবদ্য বাঙলাভাষার একটি মৌলিক সিরাতগ্রন্থ। অনন্ত অসীম প্রেমময় তুমি/ বিচারদিনের স্বামী/ যতগুণগান হে চিরমহান তোমারি অন্তর্যামীখ্যাত কবিতার লেখক কবি গোলাম মোস্তফা রচিত বিশ্বনবী গ্রন্থটি।বইটি অনেক দিন যাবত বাঙলাভাষার সিরাত পাঠকদের হৃদয়ে স্থায়ী আসন লাভ করেছে। কালজয়ী ও কালোত্তীর্ণ এ বইটি সিরাত-পাঠক ও সংগ্রাহকের কাছে একটি পরিচিত নাম।

যারা সিরাতগ্রন্থের সংগ্রহ করে থাকেন তারা অবশ্যই এ গ্রন্থটি সংগ্রহ করতে ভুলেন না। সাহিত্য মানে অনন্য এ গ্রন্থটি পাঠক আপনি নিয়ে এর পাতায় পাবেন রাসুলে আরাবির জীবনের এক অনন্য অধ্যায়। রবিউল আওয়ালের এ মাসে চলুন নবীজীবনকে নিয়ে আবারো পাঠে বসি। নিজের জীবনে সিরাতের আলোকিত করি। মহান আল্লাহ সবাইকে রাসুলের জীবন থেকে শিক্ষা নেওয়ার তাওফিক দিন। আমীন।

 

নবীয়ে রহমত

মূল: সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নদভী রহ.
অনুবাদ: আবু সাঈদ মুহাম্মদ ওমর আলী রহ.

প্রকাশক: মাকতাবাতুল হেরা

উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেমে দীন, সংগঠক, লেখক, সহিত্যিক, বক্তা ও ঐতিহাসিক সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নদবি রাহ. রচিত রাসুলের এক অনবদ্য জীবন চরিত ‘নবীয়ে রহমত।’ নিজস্ব ভঙিমায়, গতানুধিক বর্ণনাভঙ্গি সম্পূর্ণ এড়িয়ে উপস্থাপনা করেছেন রাসুলের অমীয় জীবন ও নবুওয়াত। পাঠক! আপনি তার লিখিত বইটি হাতে নিলেই বুঝতে পারবেন এর পৃথক বৈশিষ্ট্য আলোর মতো ঝলমল করছে। রাসুলের জীবনী পৃথিবীতে ইসলামের শান্তি বইয়ে তবে নিঃশ্বাস নিতে চায়।

নবীয়ে রহমত উর্দু ভাষায় বাঙলায় রুপান্তর করেছেন, মাওলানা আবু সাইদ মুহাম্মাদ ওমর আলী রাহ.। তিনি সাইয়েদ আবুল হাসান আলী নদবি রাহ.-এর বেশে কয়েকটি বইয়ের বাঙলা অনুবাদক। তিনি বাঙলা ভাষার একজন সুপরিচিত লেখক, অনুবাদক ও বিশিষ্ট দায়ী মহান আল্লাহ তাঁকে এর উত্তম বিনিময় দান করুন। আমীন।

 

আর রাহিকুল মাখতুম

লেখক: শাফিউর রহমান আল-মোবারকপুরী

অনুবাদ খাদিজা আক্তার রেজায়ি

প্রকাশক: আল কোরআন একাডেমী পাবলিকেশন্স

আর্‌-রাহীকুল মাখতূম। বাঙলায় মোহরাঙ্কিত জান্নাতি সুধা। ভারতের সফিউর রহমান মোবারকপুরী রচিত আরবি ও উর্দূ ভাষায় বিরচিত  নবীয়ে আকদাস সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর অনন্য জীবনীগ্রন্থ। বিশ্বায়ানের যুগে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জীবন চরিত নিয়ে লেখা এটি একটি অন্যতম সীরাতগ্রন্থ। আরবি এ বইটি ১৯৭৯ সালে রাবেতায়ে আলাম আল ইসলামি কর্তৃক আয়োজিত রাসুলের জীবনভিত্তিক সিরাতগ্রন্থ প্রতিযোগিতায় ১১৮৭ টি পান্ডুলিপির মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করে। এই গ্রন্থে রাসুলের জীবনের বিভিন্ন পর্যায়ের ঘটনাবহুল কাহিনি তুলে ধরা হয়েছে। রিয়াদভিত্তক প্রতিষ্ঠান দ্য কুরআন পাবলিশিং এন্ড প্রিন্টিং এর তত্ত্বাবধানে এর সম্পাদনা সম্পন্ন হয়। ১৯৯৯ সালে খাদিজা আখতার রেজায়ী বইটির বাংলা অনুবাদ করেন এবং আল কুরআন একাডেমী পাবলিকেশন্স বইটি প্রকাশ করে।

বইটি বাংলা ভাষায় অনূদিত হবার পর অত্যন্ত পাঠক জনপ্রিয়তা লাভ করে। মাত্র পঞ্চান্ন দিনের মাথায় বইটির দ্বিতীয় সংস্করণসহ এ পর্যন্ত পনের বছরে বইটির একুশটি সংস্করণ বের হয়েছে। পরবর্তীতে অন্যান্য পাবলিশাররাও বইটির অনুবাদ বের করে। লেখক এই জীবনীগ্রন্হের নামকরণ করেছেন পবিত্র কুরআনের সূরা মুতাফ্‌ফিফীনের ২৫ নম্বর আয়াত থেকে। মূল বইটি প্রায় ৬০০ পৃষ্ঠা হলেও বাংলা অনুবাদে ৫৩০ পৃষ্ঠা হয়েছে। বইটির ইংরেজী অনুবাদের নাম The Sealed Nectar.

 

তোমার স্মরণে হে রাসূল

লেখক মাওলানা আবদুল মাজেদ দরিয়াবাদী রহ.

অনুবাদক মাওলানা ইয়াহইয়া ইউসুফ নদভী

প্রকাশক: রাহনুমা প্রকাশনী

তোমার স্মরণে হে রাসুল। ভারতের প্রখ্যাত লেখক, গবেষক ও সাহিত্যিক মাওলানা আবদুল মাজিদ দরিয়াবাদী রাহ. এর লেখা। এমনিতেই যারা মাওলানা আবদুল মাজেদ দরিয়াবাদীর লেখার সঙ্গে পরিচিত তারা নিশ্চয় জানেন তাঁর উপস্থাপনাভঙির কৌশল জানা আছে। যারা জানেন না, তারা একবার হলেও বইটি হাতে নিয়ে দেখতে পারেন।

বইটির অনুবাদক মাওলানা ইয়াহইয়া ইউসুফ নদভি বইটি সম্পর্কে বলেন,  ‘তা‘লিমে বসার সুবাদে বিষয়বস্তুর সাথে পরিচয় তো আমার আগেই ছিল। তবে তা ছিলো শুনে শুনে। এবার শুরু হলো দেখে-দেখে…পড়ে পড়ে। আগের পরিচয় ছাপিয়ে ভাস্বর হয়ে উঠলো এ-পরিচয়। আমি গভীরে প্রবেশ করতে লাগলাম। দেখলাম, এর ছত্রে-ছত্রে যেনো ছলছল প্রবাহে বয়ে যাচ্ছে রাসূল-প্রেমের ঝরনাধারা।আর সেখানে পাঠকসহ সাঁতার কাটছেন মাওলানা আবদুল মাজেদ দরিয়াবাদী রাহ.। আমিও সাঁতার কাটলাম মনভরে। চিত্ততৃপ্তির অমৃত স্বাদ নিয়ে নিয়ে।’

 

মাহবুবে খোদা

মাওলানা মুহাম্মদ মাহমুদুর রহমান 

সম্পাদনা: হাফেজ মাওলানা মোঃ রফিকুল ইসলাম খান

প্রকাশক:  রশীদ বুক হাউজ

এটি বাঙলাভাষার একটি মৌলিক সিরাতগ্রন্থ। মাওলানা মুহাম্মাদ মাহমুদুর রহমান ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রকাশিত ঐতিহাসিক উপন্যাস ‘আফ্রিকী দুলহানের রচয়িতা। তিনি কিশোরগঞ্জের একজন তরুণ আলেম। এ গ্রন্থে তিনি রাসুলের আরাবির জীবন-সংগ্রাম, ইসলাম প্রচার, যুদ্ধ-জিহাদ ও ন্যায়-ইনসাফের অনুপম সব ঘটনা তোলে ধরেছেন তার অসাধারণ গদ্যশৈলীতে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন বইটির প্রথম প্রকাশক হলেও পরবর্তীতে রশীদ বুক হাউজ বইটি প্রকাশ করে। পাঠক! তার লিখিত ‘আফ্রিকী দুলহান’ পড়ে তার রচনা দক্ষতা ও উপস্থাপনার পরিচয় পেয়েছেন তেমনি তাঁর মাহবুবে খোদা পাঠ করে আপনি তার সর্বোচ্চ মেধার প্রকাশ পাবেন ইনশআল্লাহ। মহান লেখককে জান্নাতের সুউচ্চো স্থানে আসীন করুন। আমীন।

 

আরআর